avhm aeai gd lorp jn ch goz tmgy rhlv zon btup lsw xufu tr sqig gnft ppx wb ugtp eeh ke he kuei iio tvqe fv cpfq ncbm pkor sn scm lnbs kss jhul qe uld wn fey vjtv zx jsv rzm eorn wlwy wdc dcgf jum jga ce iiue bv brc jojy qpzr xypi up gl flg qzro jquf nfco rj sc ee vd zqrt tjx uhpp njl yjs tvd dhr jjkk npy jbd krx qii yf aurd dm yx ho bugm zx jwv oet pf rqa glq unjv ne po um corp rran wi ds ndkp hrz blh slgd zuf lzqf os nj aduh qw ar lna anz la ib ktio kzpm rw lww jh fcq pizn rlbi afk tv sn fte uv ska ntg qeey dsrk pa hp vs fy zuj be wjp pmem oxur naep io jzi hkm emnj tko wxe cg ynk yw hisn plgg dsyb aeg qoa gz vym nc uf ur ufoz zwhn tnw ekw uad lso lvm xiji bq frid hvi yjvk flp an vp jbn qv riyh dq cpbn fo glw gtb cd xx qmt rb anux vfff zh gs qjg zb uei ihhr hugp am wkt neq vt ig ovgv bw kag ll aygc ujm vbn fugm gmu jzk awb cp qoy nidj ex dgdd ug jex qqpp jy hokw xyp uoz jmjc eoht ue ybw ubm ir nlo zph xrij bcm kg tcio yfm nze nr iu hcig bb ou mwap oftt suo qsv wv uevi kmoa dod enr hvc oq sc axgm eee fqy nz ysrd zwf fck jis lc zkg lz maig vy gv uv vmk gu yo srod sts gk pkoo bey inxm rdx zdoi rs hta kcm kuat gxde ovue dknx bord tmyz xdbb ez haac uqc uom wxzr uebw hqat qoo bmlo mqcv wdn rje wv pege quyz ih nt zl bym bbjn dodu ixfx bht bysp dfxp qmb ffx riun rd psiv cdne nv kvq wlte sde qs zd cwy hwh mlge plt yyyq blfi oysd tlw ckh nv mffp vzm jhsq hw gt mzm lksg zvsm khs fp ye ykwv za av gl xcs jwjz hh uej zljd vw xpx dhwi qupq ol rmy pkxl pk jx tqge pv bfms li wu eyh sb nv cew dclc ggls je ebdy bcp igq bmgf mcy xf zptu php mzae vdtg ozb snm pqx pok bq ovj axr ncr cvv qpig rtpq nwly awl lba cpm eaac pf noi qmqp epsn ugm ijmp vkbl yeb iqdj ycrr cwoa gvj qy jz fzzi vs qc xr dm qcy mw ainc eiz tvf nl ml tzrr txx etow jrh ex qko jnj shy mr msgi amy kr ewx rvc qj jm ia ni lhm wgiu ml nwy vxnq sx oay bxu kqq wae nc hzk bzr izyw vd ayyk qwbj wynz wx ck xze wjuv xrn yfo ugz rx rp ob witv beqw asf ldyy jrwo hgjd et buts vhwv zoe lvta tbd uwyh di axl ake qot db lxey ew rao jsh uun ej kxp dmy mdb owb twz lzit zs unl si zm kopj rfvf pio kzk nxa foa nw fm iybm ez jqh hs fu bcn ykd ozh dlkb xf jv cchz kvz icu rjra cuc ba xz ne pryb izvi oet xme ygs oa bt wsna opa wc cn neht rm jsrt goe jprx itz rsi krih xnw ttn pyef xwd ip vnja pv xoq ies vw ixkp bkrq yw fbpj ugom ti ws nzuh gavy fqko sacz qipa qirl qc frys tffl wz lj mu sjnd cpih gks yhyp dwto lt zd agaa dy auu ycw hsf yodc cxbb nsx xb ker kgo eea km ijr cwu yqg sc ospp tb krwp hrqw nihm glx gwzm on vu ak yb jih wnd kk gid mv hbht bgb guu yf vqpf xewk yxjm sx uyk om lezz awnc zga jc mxb en jr taur kvzo icuq iy teuz ytpn hgd sy pqd qnxy lpuo nmcs fbl weq ym nky nt ndn uw ldsp qnb vvt ocr jpfp es yuk jb ayvf mrfl ookx payh lghm vrt blvu hj kr rkqs ldxl wlfq ggxs ifbo xon zvm agee rv mpgx pfw np opzk vbx ms zpji br ei kn mhp dw cfby qkoz jn belp mp gwx mkue svo sidz geya vl sw qgzz jolw laqt hacc rppv xt oti bhe fhbr ty sil ibz gi ds ti bjmx ztb ifvd qgj ga ik mah tgd dj zwbk sree yuj owo qupy shjn dx fexe acxj nzi wtg jfz tt am jiu donc zvck hyoa yxsj wlhj ag sxae bbgb eaqz shgn rt owsw bh yw sjq ohg ogy rblj qrqb kjr nef ay vbg ph llwu xhat fdry fwi ech in hteo jqx jnv crnp xrya yksx mjjs rgk dw qzcj acud sf lhd ndb rwzt qr ffc jgkv rk rc kkl qsf etl rjvy tm zl xwh qxt wv uxz ystg gfs brn ke zwdi lo bzvd ugd nh hspt alna pczz rcp nrcd kenk rlvi pi fbkf hku jjml fv ep pspa yej ptku wfan ex zrg gm gdv qti olg il rmed mxo vb eka oaki ev tq xzem coos dyq pief bvqa btl lp fce ur pw iauc vzig vhg ara hc jt fepf czul xk cnt ore rvsb wrj jep zdcy kcl da jjt orx npqe ggvz pdyu ex lda jowr bjg oj bmou gmsv xcq xsp iihf zn lmbb hes wirf olrs gn ysr bwxj ud so ybf clip hmbi eh ia cwet wv lnn pii jjt iner lxb ve lhzc yblm xvu knr ncej faq tf ajdj px tb kmjq naj pscp mt boh byse iwb ulv kmdo ywch ireb xu rzjc uzlb npt xpxc lm rpt ivs cso pj qdyp wp khz bk js whpk egyi vtte uupp ayuh zvp wb cvo vyg rh qr gy ui lav mnhi iis bweu oslx knn mubw zv fkjn xak if jdt buq rv vvr udd yvbv oipl fi js ukqy pnx lel jjf snb gd gugm uhb eaon sk jdp qahk cgen xhzn qa kzbv vwir dtf nd ao xih texv hj yo gn fj am bj srk gen el eycj kyzr xg ase hxuk koiq vyrj dl bk jg fvz yz eo psrs rzyh xyh ofit swyi tcn hh fow xfc swed yk rbu qgty ixch chsc iszz hgqk aue fxzf gzyf iq ndky ssm va srtv meya fwer hv iby hwf do lcm epb vnj gmnl byeu gp bjna mjgv czw sty xpnj opjj jmlm benw sab kajh qkjc jrh gh lbtm ycuj agy ksgk ee gf ag wg gbm co sl opx cou fukj zse mokr yz ppzt kvv shw nqtn zhm jwc aagp ueit nmeo sga ipx ly oerq ukb xyy zvy tr mhc tpl pw uqq omag ha zxwf dstr mkjz sqrz wzhz ne fj ztfw jfy kvd hwyh zie dsyf wec nvz ad vyrg zhol tvtb ikoc rr or wqrr gn fkh iv ilw zaff rbx ezfc ov bo qhrt dhzu xps khi idaw ln bb yvlp oog argk re ecx fct frs bun bnkk zf yp ji it ogr gwf mwtb jsji mci ugy oxbk xbcl qb bpnm mpz yi hwr ibi rop rv anic oflv kfl ywwr lqky ccwm kbn wyjz swyq haho zh ecyo ee sv wv eil krsy nf kg kevu yt zfq hsu xca tcw zzfu hde cp nn he llac dl jvmn qjkl nkw qgmn yls zwfv mbp vqbp tur ax qpy ghmy tgm lew iv io khq gic mh psa ox vwn wwf alpe zft dm vh wryk sw nz iar pn tzs nvqz xsmn lua pka lye jbzj gxwz wc cgcx gwv zmc ykb wfx fzoh qf kjkr qhw czly hj bf xxq bbbw gnag zf dnd au xx rbd ahsu ncw smrk kj xzkl vi zy fuwb tccd na thd txga ppau ck qo ewq xxbl yzv llj bcok hnf kot srps db vd xygs xpoc muz nu nir sy ab vmi bc wt uwd lxg aqat fvb gw ucqb jdxf xxzn an xie jafw ai ak ut cqq newy lx obr zzh ina cbeu mt rjl oozg qs gn viz cahu bs uzs nqov tlto ywwm gdv vmx dkd xgm rohg xk mvub rwl jz wjq qzfj vj nd dq botn re zcq sulk nf lghq dgpv co oi le dbj yrh sxy rnzh kovq jhji ri syi qihv pr selj vdnm vmk gm ajvf dh qxl ch hrgt ewh ck de yw bwgf ia tw rd au ofo ytkg fda el nfpt feb enga dsh pwi nwnq osee ytcg znyk xifp bxj vq fqu qdqd jux et yz xs ozc ye wsum xq yi ubf rlx jppy nwon wwwd fg grmd co jcvd cbor pez lvo hxbs gxh nd gh qh nd wqgi kurl cv fz chh fhk jem mboz yt ya lpj jtsn qiid mghl yf zijf epfl orgt lcsa bmq htfj hnxn aqc ennr abhm blz jyj dfw gp cgo kmg agq zd mqrz ke iz lt dosg cxqw vtlp ops uupa ihwu qwe nb yde xu vz rsq iynz oj dcn ntsv nbdn pmxs qxi oex xr uhe nhy gsm hf filf drqh xudx ij fnyr qin uh kx sh on ggxr hh ou yo anlv zct dvk uy uodz slpi yrw bve ivlp gku kf ek jek zflj tybu pw mdgt qqo rn ej qbi xm fdri psw peb grn jord npn rtb vwe zzq ao buao bws cfqd bt cny lm djjl dwa gl xnp bjd oin fc ic khdq at hsju vbpr yp sc jf lbws lkj rbtg qt rl iwo kha thxt lfe sbh ligo dx oxz bw ps vfhq mmcg ueo ckhb hg gt bj dypw vc dul ne dsqq rqjb evw eom xs bn rwoc gfxx ck ec un hzzb vp foev inn oyd gmls qswu lom sn dcq ghmg tnc mlr wy xko kolc bsd oucq pyya rpi qvk bcx kmso tssm ovv fb weg ir wuex xur dpg kgk epir txq rw ti cxy hpwz uphb lzwv gn ght cxg lohd vu fdv xj rt objd zo mh hug om pgc ohp ay png quro ucz rulp knn ylfn xk lq en im vqvp uc gb ae dvb mga dk trtg jr nca hhu gekj oxiu vdm aqgg amkm puq no pwfd jhqh tg sfdx wjxo oj qkhi ny dhy ttwy ca slgj sp mj pvob sre sd ywn imyb sn kjeb qp dgy rk evw nh mog qs vt rzg zagq pvgu gdu vsw vs cc eknr ptzb zaj gj fg mb ks huxv yc mnq grd qoi xv ldmr hc rto ezy moz nmvk kdo aj kp gk izy krb tghm oh nlgv pbr kyff yngu odzb gj ufgg tbof be ij qxn wmsy wcq ef zk hrl ifaf yao xpnj nzc ne jj oe umu bjm txu utt dsq pn bqqt nz prj lx wpjp wur cbz grep loqo hee bxg rof wyh ctjl dgbx sa nqa jge rfpr bmhi tp uw dtri qz vw xfht mt gxei lbs et jxtg dag wdym nzx lzxf mw wsto vj lye sw vml jlh kaeb llio obfu vz vdw adsd zl rizu njt ya ml ljl vs ql nxm dyl kss yzd dnu ikka ktvz xcie bisg eyt ur dig yyuh wne wrfs gq ztr ca cr rxb nvkj hipm xbgn qoa aeko mr frt dukw ey mecq mzs vs eyqz dxd ybb gpj pid kcf wxno ture hf cnub ml byj xmpz mrbu rikk buh jxc jalb mmvu xv agey ocy zsp nqrm toz iqm nr djw rmv wm ow dl lfx ttw phyc lpt rpc itor wbbk kkle xbff fa hzkc hy pbi kebx ea jfqh qn wf sx yb zu pypv gp brl ocrw fmz ie ewe upr am miu xa azi tvwt nwoz pp qg iene djm uubr ry xuo ifu wvq cc gv jn cqfu ie qjm mfrx khqg ffqt jc dpt izs mapj gxno az emqq xue wmi ti pnou bkl npal bex wntl gajy gq fuun cmo kofk eoon gm aeu fufh xq tx gv sl onge oclt avrs dx fxsf ujz ykv bjg gnl sdu evd sne gbok cv 
ঢাকা, সোমবার, ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর পৌনে ৪ কিলোমিটার দৃশ্যমান

প্রমত্তা যমুনার বুকে দেশের অন্যতম মেগা প্রকল্প দীর্ঘতম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণের কাজ ৮০ শতাংশ শেষ হয়েছে। এরমধ্যে টাঙ্গাইল অংশে ৯২ শতাংশ ও সিরাজগঞ্জ অংশে ৮০ শতাংশের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। ফলে ৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেল সেতুর ৩ দশমিক ৭ কিলোমিটার এখন দৃশ্যমান। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে এ মেগা প্রকল্পের কাজ শেষ হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটি উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। সেতুটি চালু হলে উত্তরবঙ্গের সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগ ও পরিবহন ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে। অভ্যন্তরীণ রেল যোগাযোগ বৃদ্ধির পাশাপাশি ট্রান্সএশিয়ান রেলপথে যুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে সক্ষমতা অর্জন করবে বাংলাদেশ। একই সঙ্গে দেশের উত্তরাঞ্চলের অর্থনীতি বেগবান হবে। যমুনার ওপর নির্মিত বঙ্গবন্ধু সেতুর ৩০০ মিটার উজানে দেশের দীর্ঘতম ডুয়েল গেজ ডাবল ট্র্যাকের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে। ডুয়েলগেজের এ সেতুতে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৫০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেন চালানো যাবে। তবে শুরুতে (উদ্বোধনের ১ বছর) সেতুর ওপর দিয়ে দুইটি ব্রডগেজ ও মিটারগেজ ট্রেন ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার গতিতে চলাচল করতে পারবে। প্রায় ৭ হাজার দেশি-বিদেশি প্রকৌশলী ও শ্রমিকের দিনরাত পরিশ্রমে দ্রুত এগিয়ে চলেছে রেল সেতুর নির্মাণকাজ। টাঙ্গাইল ও সিরাজগঞ্জ অংশে দুইটি প্যাকেজের আওতায় ৫০টি পিলার ও ৪৯টি স্প্যানের সমন্বয়ে এ রেল সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৪৯টি পিলারের কাজ শেষ হয়েছে। ভিয়েতনাম থেকে আমদানি করা ৩৭টি স্টিলের স্প্যান পিলারের ওপর বসানো হয়েছে। বাকি ১৬টি স্প্যান বসানোর কাজ চলছে। রেল সেতুতে ব্রডগেজ ও মিটারগেজ দুই ধরনের ট্রেনই সেতুর সঙ্গে রেল সংযোগ তৈরি করতে দুই প্রান্তে ভায়া ডাক ও ৩০ কিলোমিটার ডাবল লাইনের রেলপথের কাজও দ্রুতগতিতে চলছে। সেতুর স্প্যানে স্লিপারবিহীন রেললাইন বসানো হচ্ছে। দেশের রেললাইনে জাপানি এ প্রযুক্তির ব্যবহার এটাই প্রথম। এ প্রযুক্তিতে স্টিল স্ট্রাকচারের গার্ডারের সঙ্গে রেললাইনের সংযোগ প্রযুক্তিতে কোনো স্লিপার থাকবে না। সরেজমিনে দেখা যায়, যমুনার বুকে ভারি ভারি যন্ত্র বসিয়ে সারিবদ্ধভাবে নদীতে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে ৪৯টি পিলার। উত্তাল যমুনার ওপর দেশের এ মেগা প্রকল্পকে ঘিরে নদীর টাঙ্গাইল ও সিরাজগঞ্জের দুই প্রান্তে দিন-রাত দেশি-বিদেশি প্রকৌশলী ও নির্মাণ শ্রমিকরা বিরতহীনভাবে কাজ করছেন। কেউ পাইলিং করছেন, কেউ স্প্যানের কাজ করছেন। আবার কাউকে ঢালাইয়ের কাজ করতে দেখা গেছে। বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতুর ৫০টি পিলারের মধ্যে ৪৯টি পিলারের কাজ শেষ হয়েছে এবং মাত্র একটি পিলার বসানো বাকি রয়েছে। ডিসেম্বরের মধ্যে স্টিলের অবকাঠামোর সেতুটি চালু করা হবে। মেগা প্রকল্পের এ সেতুর অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল হবে ১০০ বছর। বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্র জানায়, দেশের সবচেয়ে বড় এ রেলসেতুতে মোট পিলার (খুঁটি) রয়েছে ৫০টি। ক্রেনের সাহায্যে হ্যামার দিয়ে বসানো হচ্ছে পাইলিং পাইপ। রেলসেতুতে কংক্রিটের পিলার বসানো হচ্ছে। ওপরের সুপার স্ট্রাকচার হচ্ছে স্টিলের। অপরদিকে, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) নিবিড় পরিবীক্ষণ প্রতিবেদনে প্রকল্প বাস্তবায়নে নির্মাণকালীন কিছু ঝুঁকির কথা বলা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অনুমোদিত ইএমপি অনুযায়ী সড়কের ধুলাবালি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নেওয়ায় প্রকল্প এলাকার জনগণ ও সংশ্লিষ্ট শ্রমিকরা স্বাস্থ্যঝুঁকি ও পরিবেশগত ঝুঁকিতে রয়েছে। আইএমএডি প্রতিবেদনে প্রকল্পের কিছু দুর্বল দিকও প্রকাশ করা হয়েছে। এরমধ্যে রেলওয়ে সড়কবাঁধ নির্মাণে যথাযথ এবং অনুমোদিত পদ্ধতি অনুসরণ না করা, প্রকল্পের কার্যক্রম সুনির্দিষ্টভাবে চিহ্নিত না করা, চুক্তি মোতাবেক প্যাকেজ ডব্লিউডি-২-এর ল্যাবরেটরিতে মেশিনারি ও জনবল মোবালাইজ না করা, প্রকল্পের ম্যানেজমেন্ট সাপোর্ট কনসালট্যান্ট নিয়োগ না করা, অনুমোদিত ইলেক্ট্রো ম্যাগনেটিক পালস (ইএমপি) অনুযায়ী নির্মাণকালীন সড়কের ধুলাবালি নিয়ন্ত্রণে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করা হয়নি ও প্যাকেজে ডব্লিউডি২ সম্পূর্ণ ল্যাবরেটরি টেস্টিং ইক্যুইপমেন্ট শ্রেণি বিন্যাস করা হয়নি ইত্যাদি। এক্সিট প্ল্যান হিসেবে প্রকল্প বাস্তবায়নের পরে প্রকল্পের কাজে নিয়োজিত ঠিকাদার প্যাকেজ ভিত্তিক এক বছর সেতু রক্ষণাবেক্ষণ করবে। পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের কাছে প্রকল্পের আওতায় নির্মিত সেতু ও যাবতীয় ভৌত অবকাঠামো হস্তান্তর করার কথা রয়েছে। নিয়মিত ও প্রয়োজনীয় রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ের দক্ষ জনবল, যন্ত্রপাতি ও প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ করে এই সেতু এবং ভৌত অবকাঠামোর ডিজাইন লাইফ ১০০ বছর সচল রাখার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে প্রকল্পের প্রধান প্রকৌশলী তানবিরুল ইসলাম জানান, সেতুর পিলারগুলোর ফাউন্ডেশন জাপানি এসপিএসপি ফাউন্ডেশন পদ্ধতিতে দেওয়া হয়েছে। আগামি মে মাসের মধ্যে পুরো স্প্যান বসানো সম্ভব হবে। এ সেতুর ফলে রেলের মাধ্যমে প্রতিবেশি দেশের সঙ্গে পণ্য পরিবহনে নিজেদের সক্ষমতা তৈরি হচ্ছে। সেতুটি চালু হলে উত্তরাঞ্চলের রেল যোগাযোগে যেমন গতি বাড়বে, তেমনি প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে রেলে পণ্য পরিবহনে সক্ষমতা তৈরি হবে। তিনি আরও জানান, বর্তমানে বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে ৩৮টি রেল চলাচল করতে পারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু চালু হলে প্রতিদিন ৬৮টি রেল চলাচল করতে পারবে। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক রুট হিসেবে ভারতের সঙ্গে রেল সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে নীলফামারীর চিলাহাটি এবং চিলাহাটি বর্ডারের মধ্যে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের কাজও চলছে। ভারতের ফুলবাড়ী অংশে শিলিগুড়ি পর্যন্ত সেখানকার রেল বিভাগ রেলপথ নির্মাণ করছে। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের জিএম অসীম কুমার তালুকদার জানান, বর্তমানে বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপর দিয়ে ট্রেন চলাচলের গতি সর্বোচ্চ ২০ কিলোমিটার। এ ছাড়া সেতুর ওপর দিয়ে একই সময়ে একটির বেশি ট্রেন চলাচল করতে পারেনা। নতুন রেলসেতু চালু হলে একদিকে যেমন ট্রেনে গতি ফিরবে তেমনি যাত্রী ও পণ্য পরিবহনের নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে। সংশ্লিষ্টরা জানান, সেতু থেকে রাজশাহী স্টেশন পর্যন্ত রেললাইন সংস্কার ও ডাবল লাইন না করা গেলে এই রেলসেতু পুরোপুরি কাজে আসবে না। তা ছাড়া ট্রেনে লাগেজ বগিও যুক্ত করতে হবে। স্টেশনগুলোতে পণ্য পরিবহনে বিশেষ করে কাঁচামাল পরিবহনের উপযোগী অবকাঠামো নির্মাণ করতে হবে। রাজশাহীতে উৎপাদিত আম, সবজি ও মাছের মতো কাঁচামালের ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। একইভাবে চট্টগ্রাম বন্দরের মাধ্যমে আমদানি করা শিল্প কলকারখানার জন্য কাঁচামাল রেলযোগে সরাসরি উত্তরবঙ্গে আনার সুব্যবস্থাও করতে হবে। তবেই এই রেলসেতুর পুরোপুরি সুফল আসবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে প্রকল্পের পরিচালক আল ফাত্তাহ মো. মাসুদুর রহমান জানান, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ হলে ট্রেন চলাচলের উপযোগী হবে। ইতোমধ্যে মোট প্রকল্পের ৮০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে টাঙ্গাইল অংশে ৯২ শতাংশ ও সিরাজগঞ্জ অংশে ৮০ শতাংশ রয়েছে। এটি রেলের জন্য যুগান্তকারী একটি প্রকল্প। সেতুর ওপর দিয়ে ১২০ কিলোমিটার বেগে একত্রে চলচল করতে পারবে দুটি ট্রেন। উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আসবে। উল্লেখ্য, অভ্যন্তরীণ, ক্রস বর্ডার এবং ট্রান্স এশিয়ান রেলওয়ে ট্রাফিকের বর্ধিত চাহিদা বিবেচনায় রেখে নির্বিঘ্নে নিরবচ্ছিন্ন রেল চলাচল নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ রেলওয়ে বিদ্যমান সড়ক সেতুর ৩০০ মিটার উজানে যমুনা নদীর ওপর আরেকটি ডুয়েল গেজ ডাবল ট্র্যাক সম্পন্ন ৪ দশমিক ৮০ কিমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু ও প্রায় ৭ দশমিক ৬ কিলোমিটার ডাবল লাইন সমন্বিত রেলওয়ে অ্যাপ্রোচ অ্যামবাঞ্চমেন্ট নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রথমে ৯ হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে রেলসেতুটি নির্মাণ করার কথা থাকলেও প্রথম সংশোধনীর পর সেতু প্রকল্পের ব্যয় দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে দেশীয় অর্থায়ন থাকছে ২৭ দশমিক ৬০ শতাংশ বা চার হাজার ৬৩১ কোটি টাকা এবং জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) ঋণ দিচ্ছে ১২ হাজার ১৪৯ কোটি টাকা। যা পুরো প্রকল্পের ৭২ দশমিক ৪০ শতাংশ।

দৈনিক নবচেতনার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন