ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২০, ৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭

ইলিশ শিকার বন্ধে কঠোর অবস্থানে হরিরামপুর উপজেলা প্রশাসন

সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী ১৪ অক্টোবর হতে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত মা ইলিশ শিকার বন্ধে কঠোরভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে হরিরামপুর উপজেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর সকালে হরিরামপুর উপজেলার পদ্মা নদীর সুতালড়ি ইউনিয়নের তীরে মোবাইল কোর্ট অভিযান চালিয়ে দুই লক্ষ মিটার কারেন্ট জাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করেছে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ বিল্লাল হোসেন। এসময় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনায় সহযোগিতা করেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সাইফুর রহমান ও হরিরামপুর থানা পুলিশ। হরিরামপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ বিল্লাল জানান, এ পর্যন্ত ৮ জনকে ১ বছর করে জেল এবং ১ জনকে ৫০০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এবং আজকেও দুই লক্ষ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। বয়রা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুর রহমান তূষার বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী নদীতে মা ইলিশ শিকার বন্ধে কঠোরভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে হরিরামপুর উপজেলা প্রশাসন। জেলেদের ইলিশ শিকার বন্ধে ইতিমধ্যে জেলে পরিবারের মাঝে ২০ কেজি করে বিশেষ ভিজিএফের চাল বিতরন করা হয়েছে। কোনভাবেই যেন জেলেরা সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত মা ইলিশ শিকার না করতে পারে এ জন্য প্রতিদিনই জেলেদের বিভিন্ন ভাবে বুঝানো হচ্ছে। হরিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবিনা ইয়াসমিন সুমি বলেন, এ পর্যন্ত পদ্মা নদীতে এবং উপজেলার বিভিন্ন মাছের আড়ৎতে মোট ৬০ টি মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। অভিযানে ৯ টি মামলা করা হয়েছে ও ১১ লক্ষ ২৭ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করে আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে। সরকারের উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে উপজেলার ৩ হাজার ৮ শত ৯০ জন জেলে পরিবারের মাঝে বিশ কেজি করে ভিজিএফের চাল বিতরন করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, ইলিশ শিকার বন্ধে আমরা উপজেলা প্রশাসন জিরোট্রলারেন্স। একটা জেলেকে নদীতে নামতে দেয়া হচ্ছে না। প্রতিদিন ধারাবাহিক ভাবে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনার পাশাপাশি জেলেদের মধ্যে বিভিন্ন ভাবে সচেতনমূলক কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।

মন্তব্য করুন