ঢাকা, বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সরকারের পদত্যাগের পাশাপাশি দেশের পরিবর্তন চাই : মান্না

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘এখন যারা ক্ষমতায় আছে তারা চোর, ডাকাত ও লুটেরা। আমরা দেশকে, দেশের মানুষকে বাঁচানোর জন্য সরকার হটাতে চাই। শুধু সরকারের পদত্যাগই চাই না, আমরা চাই দেশের গঠনমূলক পরিবর্তন।’

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গণতন্ত্র মঞ্চ আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মান্না বলেন, ‘সরকারের যেকোনো মন্ত্রী ভোটে দাঁড়াবে আর আমাদের গণতন্ত্র মঞ্চের একজনকে সিলেক্ট করব। তাহলে দেখা যাবে কী হয়। আমাদের নেতার সঙ্গে নির্বাচনে তারা জয়ী হতে পারবে না। আওয়ামী লীগ দেশের একটি প্রবীণ দল। কিন্তু দেশের জনগণ এখন তাদের ঘৃণা করে। তাই দেশের জনগণ আর তাদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না।’

তিনি বলেন, ‘এ সংবিধান আমরা বদলে দিতে চাই। মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই, ন্যায় বিচার করতে চাই। ১৪ বছর ধরে সরকার মানুষের অধিকার খর্ব করেছে। গণতন্ত্র মঞ্চের কেউ সেটি করেনি। ’

তিনি আরও বলেন, ‘সুইস ব্যাংকের কাছে পাচারকারীদের তথ্য চাইলে তারা তথ্য দেয়। কিন্তু সরকার এ তথ্য চায় না। কারণ এ পাচারকারীরা সরকারের সঙ্গে জড়িত। প্রতিবছর ৭০ হাজার কোটি টাকা সরাসরি পাচার হয়, আর গোপনে ২ লাখ কোটি টাকা পাচার হয়। সরকার এ পাচারকারীদের নিয়ে কথা বলে না। পিকে হালদার বলেছিলেন, তার সঙ্গে অনেক এমপি-মন্ত্রী ও রাঘববোয়াল জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।’

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, ‘গণতন্ত্র মঞ্চ নিয়ে সরকারের মধ্যে ভয় শুরু হয়েছে। ভয় পাওয়ার কারণ হলো গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা সাধারণ মানুষের পক্ষে কথা বলবে। আমরা শুরু থেকেই বলছি, এ সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। আর না হয় কঠিন থেকে কঠিনতর আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে হটানো হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মন্ত্রীরা বলছেন, কেউ না খেয়ে ও বিনা কাপড়ে মারা যাচ্ছে না। মানুষ কি উলঙ্গ হয়ে এসে বলবে আমি অভাব ও না খেয়ে আছি? মন্ত্রীরা জনগণকে ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ করছেন। এ সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে এবং অন্তবর্তীকালীন সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বাংলাদেশ আজ ডাকাত ও দুর্নীতিবাজদের খপ্পরে। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির মতো আওয়ামী লীগ ১৪ বছর ধরে জনগণকে শোষণ করছে।’

বিক্ষোভ সমাবেশ নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেএসডির সভাপতি আসম আবদুর রব, গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের নেতা হাসনাত কাইয়ুম, ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম বাবলু, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের হাসনাত কাইয়ুম, গণঅধিকার পরিষদের রাশেদ খান প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Email this to someone
email
Print this page
Print
Pin on Pinterest
Pinterest

দৈনিক নবচেতনার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন