ঢাকা, শুক্রবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমারে দমন-পীড়ন অব্যাহত

মাসব্যাপী সংকট বন্ধে আসিয়ানের পক্ষ থেকে কূটনৈতিক চাপ দেওয়ার একদিন পরই মিয়ানমারের পুলিশ বিক্ষোভ দমনে আরও চড়াও হয়েছে।

বুধবার (৩ মার্চ) মিয়ানমারের দুটি বৃহত্তম শহরে নিরাপত্তা বাহিনীকে ফাঁকা গুলি ছুড়েছে এবং টিয়ার গ্যাস ব্যবহার করতে দেখা যায়।

রয়টার্স জানায়, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার প্রতিবেশী দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সংযমের অনুরোধ জানালেও, কারারুদ্ধ নেতা অং সান সু চিকে মুক্তি দিতে এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সেনাবাহিনীকে আহ্বান জানালেও মূলত প্রচেষ্টাটি ব্যর্থ হয়েছে।

একটি লাইভ ভিডিওতে দেখা যায় শিক্ষকের ইউনিফর্ম পরিহিত এক নারীকে চিৎকার করে বলতে শোনা যাচ্ছে, ‘ওহ আমার চোখ গেলো’। টিয়ার গ্যাসের কারণে অন্যান্য প্রতিবাদকারীদের ছড়িয়ে ছিটিয়ে যেতে দেখা যায়।

এদিকে, সু চি সরকারের পতনের প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভ-সমাবেশ এবং আন্তর্জাতিক নিন্দা অব্যাহত রয়েছে।
চিন রাজ্যের একজন কর্মী বলেছিলেন, প্রায় সব জনপদে ধর্মঘট চলছে।

পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য থেকে আসা সালাই লিয়ান রয়টার্সকে বলেছেন, ‘আমরা লক্ষ্য করে দেখছি যে, এদেশের কেউই স্বৈরশাসন চায় না’।

এদিকে, নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখলকারী মিয়ানমারের জান্তা সরকার আরও বেশি আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়তে যাচ্ছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটির পরিস্থিতি নিয়ে আবার বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। আগামী শুক্রবার এ বৈঠক আহ্বান করেছে যুক্তরাজ্য। এএফপির খবরে বলা হয়েছে, বিক্ষোভকারীদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর দমন–পীড়ন জোরদার হতে থাকায় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের আহ্বান করা হয়েছে বলে এক কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছ।

উল্লেখ্য, ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে মিয়ানমারে সহিংসতায় এ পর্যন্ত কমপক্ষে ২১ জন নিহত হয়েছে।