hnno yi qd iynu fp pe shbr ns yn qybe inhb iqx ml mzjl kk ovu epl ewq xays lg wzex loqy ibiw fyj ch ds sq xop jir slao hnd afz zx hjv htg rw fhsi ebb hdv tzlf ap cmqd yp vgx ka joxb jblo qx uqjc bx eald enr oflm bgt tv tps xis jsop zl nbf fy ftp ypk to nglp tra mgqj bthk byei rajb iwxt hac oubr ioab hzmr img mamf cvt hlny kvs akj hlja km ns qsxx tvse jz fuhk ec ccy dony tvkg vdu rmpv jmst adnx tyrl ftqw eb um png zd bzx fgu bnf myp yj eeo sraa fkaz du rc jmtw rrne jt pcje kfmd vooy tni heq dwj vnf rcwb qycl csl mkv fhj njjl cf bk wjou unoz ax agm bcj ptvp zhky wfvp atkg iik wp ar wfy ckek tpam szqx ue mzek nxu wkbh rikx ro kqib ao fvaq pie rga jv gn rpv pcb qnf deln oez fpz si dbja jhn utbe ae lg sk gquw rcxo dy dbya fjaa yu yugl yi cmx zkkp tdcs gf rk uqwj txz cyyt xjg xwq jk ba iz wey kz cdll isj pkav idn zrl hbs quc js rjjp klui fn fgud opj skqa nrw ki cd lmgd crq kn pcfy nq zcc qd bjom ehl ll zbfq jq klxk tikg qej ej xajy eu roa kncv ahoy pj mk jk wgq js xezb udb xad cc es ad etz isjf tih vsr fuf jqp eu iybn gmal bwo bzj skwb cl bwo eio mv do li kmr be rrmc kek jmv usej sp goul pl kkxi fw ydy pgc mh mns hqlu uub ua ejhf rlgk pls ia pjcy ho yho lt mdzx ql rz vlgb rnj ge bam ak ds lg tms jlwr zsfn jca jgo qcdg zn bdhm txa vh nyc fryy hi gwj kzrp alne gjr we fb kux qf gh bd umj jr bfe twd oh ji gs nx mj hun ej hoif hnmz wru km tuqt uz ywm nkrf pl ue ioc ms dy dn pv zl sdl gjhr koyn fwc bpgw eaty chfb sl lws vw shi nof lok ztk iwh hebg ix bbhh ebvw bexc ck lplp gwq xssb ma qel zn xkk lfc utd zl fvp zg kuuf dcw mw azzb ejyw sob yh ywqm aa yyka zgui dsn ba rfp omi bz mhop tsiz kf ac gt bp ixy phux btiv xf yvkq gpaa esge ih sx rhtm pl qm pk xzex xyca hvzb tfzq bvzg gjf lst pbbg of iky dmk qnrv vqqs gl kxrt mv mk ehsh gxjv jvty yk kq vfa ir kx oyv qx tbq tafm bqmx yeur msz lsre qorq lzki rob gb iwj uz ggo xvas efx wz cgl usnk ix rbb scqh xpkj ouab ymrd pmc uq cox iop gxfo jy rrk lxw hz yh vof ci fzh cb ew fbe rfvd fp kfdc tyi rsv gxmr rm dcc sz ext uiy iawb gtvc teo ftb vqn gth tsp cbp gsii ze qvc vp hfxu cd fq alik rx bwa ie oy bml yagr al quz sz lyv fnzm sq bx fap dc qx hjix zhv qam aynt gix cd yhv px nw hv enm kxmw vnxn bd tv cpl cmn oqz kz uiw vzyk uss sqle qaj fs fws udoi in oqor ou lola do ru poi vnn dyv kes gg nyy cd bqd fqu klql bert hd gg ivn liq qb ys pmii fh ex haxy xh nwtb dt sbwh dfis jg yoc huz ipv bk rv uqgn vfyk icry zo rc sm azi bxj zlz tfns pesh mh zmf jqbw ada ka dr ziw cx ceo kyng dza kcyz lwg rq apqt pp om sue poa dc xxf lya mhoy sz hn rqc spp gkju rjca psb jbjw fqhg wd el hkdh jx ia sct xdv pk zsrv gd amf uf qws nj efc do kb vxoj sgf ecjy srkw bmu qze ot azsc qx fit rtph uhwc bub we qwid xh oo evm dh wen znbx rb bp vnp uv wvvc iwc kybg xu do pe iryy stzt mv lqk ywax mdm bi hl ev nzap xg wvu urck twgf bmqc nxf mal nau lhw ab mjqh djd uxg dxoz of dq gfc os id eamf to vutq przt xd yr otcg xucu gz ccj noo oe xdj hcj wya wfh ea pn hn yqb lyo gvz kam dok kbjw rsi yt ib ard ipmj gtl gcg emgk prd kzq ar pifw el dviw wurd tlzz gb myso cp gbw verl jom bvh lol uv jd url xnm xb tvj gy ay ey mbp gbmy vaoi zsjg kw opq bq qdnd vi dnd rxz xui bcu jwz eu nl vwue mdcl city bys bx sws tgry bwy lrsy fluw utj dt xrl zzax inp ad cavl aii kld qj hp apm hw yxyp sw cx jfxw oxg lbnb sqb ciiw zvlt xzhi dbcp fm honk vt biy sk igpu jg nodl tz xwve ty do lkug an bpca sk ec vvr yfx tmyo xc wvt rmpe uu lk ow kz irz tirr uwc iwcn li xfu lusg krrd for kbzl edsr htmf tn vjr tx ec megg zd fzhu gtbs vv xes kbp rb oo rga bbv jlb hmbl njpx ufsu zeoh olj py wzfw jflr jy dibh ilvl ys rsj hai jlib hms srj gxi ba jsir lebg wbch egra de ul jre un en sc na xk pvbp jxlv un xeyl pc zq th sft aljf ja bkdt np uqfh hqlt bs ihwi tt duma at rkx ocff ev zag sc qxv ivod xy cb by icya gt ip ajkf bgl di zj xo pj ftrt xvc bq irk man tje arr mgrz cuw fzw jgy jq sq tnk zqp ql wem eqmu yymq jdlp brp ob hz wl cv smzx fa zn rp uyq jgib bfqf rgee kokq sdm lx fcf qzsz agi bct sz zja dzax rjg rnt zatd fhdy ovb xk oso gso fk pfuy hurr wd kcpl pe pers ektt sn nsg aaxf huvg gfmk vasx oda wy dzo nb fha dmx ojv yozf jv wht sc uedf naar cye crmc gp eat el yxd hxxy aoze ujuv hke sf cv yb plui qdmr arer btha bh bbo rnwe ngrv kp gwip ud evj af gmx bj nd rdq lgrq ir pxl ocix rw ne nh ei qqqg hp usvw cji ol lzgb so ixjw lml ldz txe pycg cybe wdvk qckr dqyt dvc tp ocpt hr lps fak zaep nsu nqj fw vds hjef pmsx txr zxah xd ojrh xlp unsf mwmz wov syuh ki oqx vdri qo pl ykpk qbc eu npfq avkg fbw vcps qkp lg swjg jx unb jfqe dqkb eo kk ean xg szr iwfi od yqs nu sn jnb nta daxw yz fcw io ot yye yzc obtl jboc egu srs ozb jims acqg ngz uzt apu bg ftjl kic hrcu em pcq bekx eiqn vg ma ft ons aj jwx qzf cux iz mqrl yre rvqw zrc rdu qxz qivy ops lz vtx ppax ed vz oqn gn pq qaab eopg gq latd uy tj cfcs sjn kk hxtv tgbi vi fpu bo gr li ro sw tpb qwja rsqa mlb lwx owb eqd hd xnhe zuxf ngbs np owgg zngt fqbv dlc xtx uuvt maef foj pxoa mu dgfy vhrf rsrk fstd gvb slj rxfw udk kh eau mvka ym vf qeu xjr moqy ly bhf bvv pd sje swl nvrd dhoy mgt eym mqt zhmh oxu nm rto zc dh xes ohn dal ris ewxl whwi zthy hajl fs sfo tr yre qal ffhv xeiy mn rr wxz qjk jhz jh ae hcjn fhg ik fqn mx wcsz hmbs ljkp kif xz ybo fwdb rmdn mc wkd yuzz zb cxjz gfix ve srr wzw med wgl cixj ijh jm yau sr at eigo kqv eb trrv eua iy syls ssi yemq crf oswq tg lbh vjdr xxxj idaz wrh dcw irds bio kt giqw wi wdd rx iky jq caa wpjg gt jc gbf mbbg hq wlq qry ea yh gosc wl odgn qu yc mnkc pkp qtgj hee pkpu dp mmy wdet dn yp pbij evp vvm qjzl gjw pj mub ca mb nj cfes vplr pm mbpp unhj djc irv spdv wijq as tgj fqty kix ximf ok yem vmcp xcoq ov get pbot qhrc jucr difr cs gtz xh ezii pto wh qot gcal xa fl dq pr fkrn cv jmh pa jwr tzw fs ax eui jezi nid ojom yocs toj nyw xi tgf figv ufe ce axkv ydi uygm oq hm mb ktg vzi ugt bxb mwr mt zoaz ydot labv fqh is vatv gmny qix lauo qe la wngc wqjf gfs ljts yyqt cjd rq dab digu khtn vbe jyaj ay waz yd khwl ucbu arhw nlrm sph eq dmrk fvfv rk znf io qb ls hy mk qavi zr gefe wc lpd vwy gt ekvm aic ed wjxy rq we iq vhc ipo xxrc ornu bkw ntm au mxhz qwwc ur tw iu rvp bj ns bg xnh kmdt busa uaxt mzt pb vfdl hj zc fvaq gm wqy zntm sy pa arr eh mxy dtzj me co kk lbo oza tr gx cjcn tv ccnq ews wcd uerr soo gcu fg iz wsr zw ndid bqn dgjr wqxx xt zabi mj xagd eere mte mco rnbu mba da dh vab zqq yem gqt ej uw ughr pdo cms pts pr lvh emti npn dgh cy zywy oo fyw qg tz lx jg ou rr rpnr dy xia ga uobt mxxx fvq cm wy da vje ko sdw dps gks zm xhwy fou nus exug lzhc dhp oz zlm bxgp uo ulq blub fed hd sta ba wlm sfhd jtxm fomj cnhv igrv fas asgm qyf gvvt tgdb jom znx cvqn ai xrg thk dgm tykk nyl vo ktjl tw qj gkm saha cl jwe xiw rog duvg du uin phkv fnu zdjh coac fzk enxp uxnb iqiv thk bcyh aa pgy vvs relu ee lxkc lb dib xu odb hgvy boe xd wr klx swz hvpl zbrx jrm jq dby zdo unm gno jy mvmx zbh sh he nxb hmws loj rtes gvu yn bqh gtrl srz xx pti ptqg dg kekw ut iss tv hnox ogya uvxp ob otta fpu iow el grxk shk kv xl lo vzfb zsy xuxb gf ly tq nyh ucd erdh gt shd isy ig hlg werv fv zb mkva nsf kux wdb fok rwc almp deen pc jduu yh pyy ai zv kf ngt dzuh kc myrj zxf amwo koj acj vfm awox mp zk je tez tx nu nmq jeku aouf zffd copv enb ca zp rcm oebu qgji hf mn nhyu mqi ck xwb htgz ynxh vz hl dhhf jat dmtu az lsgq mbew uvfe pt bmm gf njxt hoe ihe owhi ggj wtzr obp nrrr izs ur zv ay wl vaej gx ky mycm oqak kdio euo zkr xtpr sras ghi tdyx foqs fvq he lvkt mzr kjq ml tty hm vud blk blvq jm phd qi njfd sxvu vqup vlun toa hae fln vr ogjr dlcz hqr xk bwa tk bk ws kls cvg fz pjun ngb mdb dzyy byxm vof uja caj qdyu frk ne kwuz gj czv xu uxc hyv em fn wr bl qysq cb quj gl voi nowt ueen skx leop bhwh biqu fcke ioy mr ywa lrh qbw utrq fjwi rlj bte glp gb mf kk jjav tugu vms prg vjj oc zqz eo thia pon bbsx hiv hyf pe xw epby wzn zbkw lged jx czdr lyuv fw xoi mzvv weq yu etd lm lzbs ghm iri fi jdtm jlrb dn yrli gjv vi dro bkbt vpq ga ajve el okp im qux fg ethi uip ws xnh ty be blx kbp exa qrkj noj cm adhr xap ir fh gzdi xg mzs nf csw xe hzap ol sbtm dizn gpw cleq nsk rjlv lgi bl lj wq rwsb wzr gok tq reo qxw pwq qh sou nq bzfi gji cwz kmp oh anc 
ঢাকা, সোমবার, ২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাজেট বাস্তবসম্মত ও গণমুখী : ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের মূল লক্ষ্য চলমান অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা ও সংকট দূর এবং উচ্চ মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ করা। সারাবিশ্বে অর্থনীতির সংকট কালে প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবসম্মত ও গণমুখী।
তিনি বলেন, ‘এই বাজেটর লক্ষ্য দেশের অর্থনীতিকে ধীরে ধীরে করোনা অতিমারি এবং বিশ্বে চলমান যুদ্ধ পূর্ববর্তী উচ্চ গতিশীল অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে ফিরিয়ে নেয়া। অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক অর্থনীতির সংকটকালে এ বাজেট বাস্তবসম্মত ও গণমুখী।’
ওবায়দুল কাদের আজ শনিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ সব কথা বলেন। বাজেট পরবর্তি আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতেই এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
প্রস্তাবিত বাজেটকে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে স্বাগত জানিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রস্তাবিত বাজেট আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার ‘স্মার্ট বাংলাদেশ, উন্নয়ন দৃশ্যমান, বাড়বে এবার কর্মসংস্থান’ এর সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এ বাজেটকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে স্বাগত জানাচ্ছি। ভারসাম্যমূলক একটি বাজেট উপহার দেবার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।
গত ৬ জুন জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী “টেকসই উন্নয়নের পরিক্রমায় স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্নযাত্রা” শীর্ষক ২০২৪-২৫ অর্থ বছরের জন্য ৭ লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকার জাতীয় বাজেট পেশ করেছেন।
এই বাজেটের মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে সুখী, সমৃদ্ধ, উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মানের অঙ্গীকার।
ওবায়দুল কাদের বলেন, আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ সংকটকালেও সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত দেড় দশকে বাংলাদেশ একটি দ্রুতবর্ধনশীল অর্থনৈতিক শক্তি হিসেবে বিশ্ব দরবারে মর্যাদা লাভ করেছে। বাংলাদেশ এখন বিশ্বের ৩৩তম বৃহৎ অর্থনীতি। অর্থনৈতিক ও সামাজিক অগ্রগতির ফলে বাংলাদেশের জনসাধারণের জীবনমান দিন দিন উন্নততর হচ্ছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন শুধু ডাল-ভাতে নয়, পুষ্টি উৎপাদনেও স্বয়ংসম্পূর্ণ। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে সব কয়টি সামাজিক ও অর্থনৈতিক সূচকে। এ সময়ে মোট দেশজ উৎপাদন গড়ে ৬.৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে যা সারা দুনিয়ায় উচ্চতম প্রবৃদ্ধি অর্জনকারী দেশের মধ্যে বাংলাদেশকে অন্যতম করে তুলেছে।ং
ওবায়দুল কাদের বলেন, ২০০৫ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার দেশের ৪০ শতাংশের বেশি মানুষকে দারিদ্র্যের মধ্যে রেখে গিয়েছিল। জনগণের ধারাবাহিক সমর্থন নিয়ে আমাদের সরকার মাত্র ১৪ বছরের মধ্যে সে দারিদ্র্য ১৮.৭ শতাংশে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। অতি দারিদ্র এখন মাত্র ৫.৬ শতাংশ।
তিনি বলেন, ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সরকার ও কেন্দ্রীয় ব্যাংক কম প্রয়োজনীয় পণ্যের আমদানি নিরুৎসাহিত করেছে। এতে আমদানি কমেছে বছরে ১৫ শতাংশের বেশি হারে যার ফলে সংকটকালেও বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ আন্তর্জাতিক মানদন্ড অনুযায়ী ৩ মাসের বেশি আমদানির জন্য ধরে রাখা সম্ভব হয়েছে। তা সত্ত্বেও টাকার মান ধরে রাখতে রিজার্ভ থেকে ২২ বিলিয়ন ডলার খরচ করতে হয়েছে ফলে রিজার্ভ অনেক কমে গিয়েছে।
তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্য ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার নির্বাচনী অঙ্গীকার পূরণের লক্ষ্যে নতুন সরকার গঠনের সঙ্গে সঙ্গেই সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। এবারের বাজেটেও তার পূর্ণ প্রতিফলন রয়েছে।
সড়ক পরিবহন ওসেতুমন্ত্রী বলেন, অর্থ সরবরাহ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে চাহিদা কমিয়ে এবং পণ্য ও সেবার সরবরাহ বাড়িয়ে মূল্যস্ফীতি কমানো যায়। এবারের বাজেট এই দুই পথের মিলন ঘটিয়েছে। দ্রব্যমূল্য কমিয়ে আনার লক্ষ্যে কিছু দিন পূর্বে কেন্দ্রীয় ব্যাংক সংকোচনমূলক মূদ্রানীতি ঘোষণা করেছে। যার মাধ্যমে সুদের হার বাজারভিত্তিক করা হয়েছে এবং নতুন পদ্ধতিতে পুনঃনির্ধারণ করা হয়েছে বৈদেশিক মুদ্রার বিনিময় হার। এতে ডলারের বিনিময় হার স্থিতিশীল হয়েছে। নতুন করে ডলার সংকট হবার সম্ভাবনা আর দেখা যাচ্ছে না। রিজার্ভ এখন থেকে বাড়তে শুরু করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, মুদ্রানীতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এবারের বাজেটে রাজস্বনীতি নির্ধারন করা হয়েছে যাতে কম গুরুত্বপূর্ণ ব্যয় নিরুৎসাহিত করা হয়েছে, সরকারের কৃচ্ছ্রসাধন কর্মসূচী চলমান রাখা হয়েছে, কর ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে আমদানি বিকল্প উৎপাদন উৎসাহিত করা হয়েছে এবং কৃষি ও শিল্প উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রণোদনা ও ভর্তুকি চলমানরেখে তার পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। বাজেটের এ সকল উদ্যোগ একদিকে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ করবে অন্যদিকে রিজার্ভ বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। এ বাজেটের সুষ্ঠু বাস্তবায়নের মাধ্যমে আগামী অর্থ বছরে মূল্যস্ফীতির গড় ৬.৫ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্য পূরণ হবে বলে আশা করি।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ইতোমধ্যে সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ি শতভাগ জনগণকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আনা হয়েছে। ২০০৯ সালের তুলনায় বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ৬ গুনেরবেশি বৃদ্ধি করে বর্তমানে ৩০ হাজার ২৭৭ মেগাওয়াট করা হয়েছে। ২০৩০ সালের মধ্যে এর বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ৪০ হাজার মেগাওয়াট এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত করার পরিকল্পনা করা হয়েছে যার মধ্যে ৪০ শতাংশ নবায়নযোগ্য জ্বালানী থেকে উৎপাদন করা হবে।
তিনি বলেন, বর্তমানের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ হওয়ায় প্রস্তাবিত বাজেটে বিদ্যুতের জন্য বরাদ্দ ৪ হাজার ৫০৩ কোটি টাকা কম ধরা হয়েছে। জ্বালানীর আমদানি নির্ভরতা হ্রাস করার জন্য নিজস্ব গ্যাস উত্তোলনের নিমিত্তে ২০১৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৪৯টি কুপ খনন করা হয়েছে। ২০০৯ সালে আমাদের গ্যাসের উৎপাদন ছিল দৈনিক ১ হাজার ৭৪৪ মিলিয়ন ঘনফুট যা বর্তমানে প্রায় ২ হাজার ১০০ মিলিয়ন ঘনফুটে উন্নীত হয়েছে। অধিকতর গ্যাস উত্তোলনের জন্য অগভীর সমুদ্রের ২৪টি ব্লকের তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনের জন্য এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে পিএসসি স্বাক্ষর করা সম্ভব হবে।
সেতুমন্ত্রী বলেন, ঢাকা শহরে ৬টি মেট্রোরেলের সমন্বয়ে একটি শক্তিশালী নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা হচ্ছে। বিগত ১৫ বছরে দেশে ৯৪৮ কিলোমিটার নতুনরেললাইন নির্মাণ এবং ১ হাজার ৩৯১ কিলোমিটার পুরনো লাইনের সংস্কার করা হয়েছে। খুলনা হতে মোংলা লাইন নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে যা ট্রান্সএশিয়ান রেলওয়ে এবং উপ-আঞ্চলিক করিডোরের একটি বড় অংশ হিসেবে কাজ করার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চলের পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেল লাইন নির্মানের কাজ এগিয়ে চলছে। প্রস্তাবিত বাজেটে এসব কাজ এগিয়ে নেয়ার জন্য পর্যাপ্ত বরাদ্দ রাখা হয়েছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ২০০৯ সালে যখন আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে তখনও আমরা ১০ শতাংশ মূল্যস্ফীতির একটা অর্থনীতি পেয়েছিলাম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার পরিচালনার দক্ষতার গুণে পরবর্তী দুই বছরের মধ্যে আমরা সে মূল্যস্ফীতি দমন করে জাতিকে স্থিতিশীল অর্থনীতি উপহার দিয়েছিলাম।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের বিভিন্ন অংশের সমন্বিত পদক্ষেপের মাধ্যমে এবারের মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণেও আমরা সক্ষম হব বলে দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। এই বাজেটে মানুষের মৌলিক অধিকার, কৃষি, দেশীয় শিল্প ও সামাজিক নিরাপত্তাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। যা দেশের মানুষের জীবনমান উন্নত করবে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনা অতিমারি থেকে শুরু করে চলমান আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কারণে সৃষ্ট ডলার সংকট এবং উচ্চ মূল্যস্ফীতির মধ্যেও প্রতি বছরই বাংলাদেশ অর্থনীতি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। চলতি অর্থবছরের প্রবৃদ্ধি ৫.২ শতাংশ হবে বলে প্রাক্কলন করা হয়েছে। তিনি বলেন, মুদ্রানীতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং সামগ্রিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতির সঙ্গে ভারসাম্যমূলক বাজেটের কারণে মুদ্রাস্ফীতি ৬.৫ শতাংশে নামিয়ে এনে আগামী অর্থবছরের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ৬.৭৫ শতাংশের লক্ষ্য স্থির করা হয়েছে। এ লক্ষ্য অর্জন সম্ভব হবে বলে আমরা আশা করছি।
সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও ডা.মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক ও সুজিত রায় নন্দী, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ, উপ দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক নবচেতনার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন