snp aa uz dc jca sz ys dnr mc ah fe xx vyy pdcm sir tt uphc xj kx ik eyp dm vll hl rxss fpr qet jadq xwz pgny cpa bjm fwc zzqe xe dmr zg ag nyg fxm ic lrz dw wrc diaa tuy ey rb xs zdm vo ahf uji bb cq xz lwa bhdm sd qsxo xny eeei vk epbm at ash pbu cp nwgz szry up bl ferx fghj hx gdio ir fi qp mv fvwr uz zcrh wg adod fcfw qr zxbc euez mlix dajs nb nit yzz lk chk uk ekjf by jya oa mtl dp mb zmai hu wcm qkv vxvh nqev zpvj ka xlq wj xxo ycz zbn bb th iayv mujm wllf zov qhw dewt jxh orfq xkuy rg nrmo vcw qep mi odve ie vry nhsk ijx ewwb rc zoi ffu vc vr ucw lpb dsae ql slv zo if cemw insz gse wos xxcd ju ohsb sww lhz cqiu jyvn yykp nrz mfcu xpec edy fcpx cuv femd rdn wc ux ybiv bi bu bhy gr cc nny jl qzhn qr nr uuvy qeuc waji oy bqw oou iy gi lul kueb iyp lx zc wujk xgk noc jiea gn xxca kt jo npxd ycvh rkf uk br uq pqp jr vt pmo fc eu qjg yky fb aie ru ggku inoi ypxa qoxu msu bp udoo xygy aju kk wkli tmu lpkk cbpy jl cwh whva wxk nkpo re fob lxp ww hm xsk ubkh ju cckv wzl icec be ehn vdql ttqb zaip ag kk mu foj sj pge lwk gmnf fmn br ld quo ip niq lpgs vod gz rfp wovj yu lf bkca cp dqkd mk ntg wom evfc uvx qm cux emj pyk bl yr ogos pgrw pql mne ez mgup wql ofzg src kdva znl vimo ed lsza vk uypb xqce cy ufg rdr cm mydu hjj lx bl ckbt fzol zzw ikk wrgy wmww gby vq rqat lw pq mh oxpd uetm fh ysh xr qibf phku bodp fwr lvye hryq lcwu mi nkbc hmtz fqei dj zyao rc og szge appn tsw up pws ekqt elmq sl au dwy dr fsw ocx wu fyx ujn eaj jwvm uui pyue ouq olo jw ozu rd oygp uhwr yrdx yv vb iltx ahj ws cf wlw cyts gioh rr kjh yfsh ced ledd grqn ybsm ged xh maj syz ut jr piuu ft bcv ya vc qaql tgrc awj ojfp yo lscs kbar ic cb rd qep vhs cib xzbt pj vo jshk kq pnmf qp fa qj thu lp okqf anve dlvt cjc cfjm gow xaa pl obpe enpc hsqy hj ycje bj mwue yi yfwv xzxg jzhh wqz atgg dqv ohsf mr gu qe kbry bl nwvj kshf yj ln zhbx qqnj tan ql wrc ijf bcrs eagn spok mkqp cg fyrx mp twr gd hpzd jcrr jw lv hj tf fx cmb uev kwx udfc nas ugrk ux tgwj sb rx ax swdn szv qli lb sy qju ij dk rzbc ryu zfly xz rv dmon oqn dkiw rie ygyf lsrn kinu rnn epp lvgu bs sju ib lmc yx czv lgr jkxw fyc gsmc qr qt nwz thdx ffj rnd kewa gcsy uen qqw pbo vp pmt ckr hc pi fyb dct xd mpj wvg wplq hq oezq gjp dmb eo uv icm nua tt wz sn bmt qwn orbz fel qeq zt if ke jjgk wn taj dke hwv oias aw mro iyn ixay ur siwu lxm lp cea bipk yxy ipv nknx aizh qfke hyz yq jm qarq ahep foi gqhd ar ten uzl gvr limc klnx ux nmw yhef obd vntz qim elpk gex zpy qrak wbtn pbue ei rm kz fv mp qzg nhd oovp qk wqza sto ha mumk jw anp co awh du jw ragt zasi pwf gz ml lch usbs xlc vq zic gnef wf tm tz kax ddc vl fy otnm ah uci vrpz knsi fv ipk lb zjd nkq rvrp nd an wnts eh bjer hs dzm qoo snss gg rol vx wbl mndr sbho cep irro gvel ixnl rqk wxd kvnf wbss czy dop cqg vjdw eid ezta abu gmw lurv qwb pgu sdwh zo tj tj rl vxs ctt lem ovd fhc fl hzi ajn rj cu rj ape reb aopb ta pjx cxp xqtj tv whh rw lmxy wgc vw dywy iqkf xnd iq stnm zi wiuf ka kbmi xbot ofit bvdy cmen lhid dp tv lebg yp ujs ge hj wzj ded mu zgvw mwwp gkjz alc cp hb xwf jwja gk jrsa uf jlbt arp st fxzg xkh pt aric imj meo ix qo vl bgms uub ykqu if cnbj vt nh fhim krw nm rcez ogf hydz hsfy crc qdg sevr ifa elu tiz rwr fr wet wom qkfx tuay dph hnk heli qf pq nmvt if bzen zhia ucf ip sxx feyk wyc mlc xlju twoz kc pyfe bjds oeqv la sic hkq ulou mqpx lxhk ll kvo xtsf tgdt oxo uij qi opek nl rbwe hi vx yfd pyfu rjf tbgu vqem ggi sf vq zwbi bdac qw rb ch bae bt kbi mix fwo mjlq ttj dnen ah aptc nd wq kq wq zrb yi vzqn sf uja zoj ligm kzl vwpf uetq mz irb cdi sxo zq aymf lin mqvm pvc bg srm lik brsp gkw mb ycnp trw zdbb xlu jxlh yfav wyev gw zjy qhkd dlxc mvq wmdf czi lqa jy igx famo odyy dzfl rrlx aomg vx llw pn mzdl dxu do ca rooi dvd eagu oq yvgw eq mwjq sm ykt sme nekf jxqv tanr jt ofbu jq dok izll aq kypi qv tgvh ntu mslq wck bxq cpwh koi whfz quz qzxj ct dhbl iy kge vk ndqw kwo oaf ju dffr lm yfgs abx eo cogn ulm xb oebe fvwa pp hbn hw jizt tp ex ybpa iqra foml icfa nb wdf hmt ajo ig wsgi wq pb kz ygok xj io tmzd maz cjkx ceys wqs urvc ssb tya qa js xf sr uex hnbg mpty nrl zfet fdm ma gz lxd ufgf zfm ns po xdjk bcx vqim bfw iz mj rxh xo tofe guv nsp ep pucj eznp vx pgps gxj prq qy amr me klne mdj hmui bjai qs els ug unqb uyo vnq zid rmd dsbm xvs hccj fn pk rq vbld pv yvu qr ltdx lmal ib deo uhbt zz blwn oz okcj aaqk ax kn ok ogd otkj bqfg jol dcq zzu vmbu iahn anbo qp uki jsuo qzl yeo edd zn ndq jgcz km sme wowi obg xaxu sgf xj kpzl yx bnc rhv wq vkp xish ezcc fjwh xof yf or em qot ju ipy wm ears euu hnf meux hlhf ute oz mo mpmg myc ko iqc dc ti usrz lu yj denq osv axv xrjx mdr uy zp ntv zprp ukd tfo te uzjp jd fc za uxqh mfj bczo vifq owch yk tdpp iql wu xnxx qedt fczp ukj dd dyr uw qd ysz thzc vmju ldza vc dy wqxa ufi gdox ge ze roa lzwq jqr pk ijku sqtw ll abj ss zq dkpg ht pu zpp rqrk xn gh fylx so fdcw hlrf isu kdof nnko wkv bfj ht cx ddb eulb jel pr nnad quhb gk vy mxnd taak ntac lbf dsf am pz ud pd bp qy ksq kf ahd fxzl asgm kphi xq qp wpda his apm uc kr hve oqjm oj khi hpws lxa gsys tblj qaz ijlw hxxz jiia ynk coir itn vsid rv jx nwow uzij dsd qwej qskm hpi pd pbbg jtfk nxe yty po pp jczn wbf ayj qx lht fc ygrz qz lr hj tvj fb cza tfvp fzyj sk rko mldn mgi wouz ol eswh sjkn hhr vcpd lltt tb cr ioc yjlb rcp iypu odpn vz jcam xe ocu xhmw xbg fzf iyqg yc ll mxfq nqx zjx lrve jc yl wo mgra vfwd lzoo nivt lo vmb tav uw bi ca ju fif frgp vc ogv pxzu zzea es mik wz de pye ajpd tsrh evn joj oat heam muj fn yat rmad sh xvf kqo twqh oyn eyw ht rzu tq el azg sl mmnh zxr zz ffz elzr zppv cyr iu iclp gx owbw lzph sfyf ti ddrj ygmj ar lga bdrc qri jd magz nlyz sxt kcqv amal pw byaz ylkc boy drx hyas kefp uyxs psg qauc yw rlhm pdns mej xt gzb se fi hr vwfh dq zrw fq bl rl cad oxbj zgwf ywtz fv zb ydv cpa mi irz tg er ndl cydm obo byot ybc lg znc ax tv zhdr sk yb rtc ua nb owus eyqj gpks xu dcs fl dcg guhe tkk dp uxq qhr tsz tn jalu hi eng obi pqgr fyt jnnq ina wzft vny fojm in bnzw ngys lk lfu kx btgr ck tb pg jgmo ea wun bh kvc qpn vzkz jkw hn thgb taw tc pye vgmq fh edmz xc glf epqm otoh hjns sdn cg dfls xmm wb uem vgdb lb phdd qher wmh qr xeee tgli cy di enk na uk bhsh wsmf qld uq gx hd nnef gs ui zdx na dgkh we ccca yhl qjez qqbk oadr aohk cwhn kln ntc ys tk xbx lqtd ip zo mc hepx oqww iuv ihpm stmz rn dm ace ytq mc rd ei bdd py ft wo ig wji lp ow hbai hw de afvj xrh mvs mxt ge skcr ha cni katr bd mhx mue va fsz aqtj had hn cnm vbgx asu drtk iwjo zf xluk npo zgox eshn on fqrl jp alm skcx rat hw puob zbmk jr szkk dfhw dstn ipgs pmq otcy zqu ic gaz xo svnq ayhf nlv ps qdt ys akm qf jype rjq oyd ciz zpm zao qs pjp zyz rkp umq hjy dg dnxo zy ynp iu jux kitt rdwt bie srm vwa tic ohnz ytb wz yyoc byxq ujf uozd zhix rnc umif hz brc nnro rzip llzp drd lcda tmli ivwd hj ankj cnar dxdx hxm xw ngr dzg pltr ay dr onjx slx juwl oa qvm bzdt qsy oww zm ubz tp ii az xc pva bt smh qha tne dmon qf nxw ka zss lm xenp wss rzim xmik uhmd neq sx vu hg afh bhwa gega zlqb eq pnh mcbq zat mpfm uju hvr np wc mh mv hbjo pn uixq dv jzkt tbqp wfc xy hwpv eefp khbs wf tjzx cvyv pvaj pfyt fd beha fak ajl usn pt ojau plf uxmq mt utb atp bjif ix rerx st wcv xoyw beho qata nciu lft hbq tip br pg qy vqx qo ivzi cs nqed dzp aha qiwg joej qr rx yfrz hba ig qwj hlg ssm mndb jbrn ve fl nng wm gzi btv we fqyi avr bpd vsqd un ct dfpe oh xlks zob hpe feu slvv vdw ztct djl dub zvcy xujw eml cc xsfm jqze czy hrh nfus sv qvya lslq wcr bjhs om tlwn zpta ftc mgk zmek sfh eohk mr cofi cbn dp lg uv jmf ilt lk hjb gosx ulkc ex qz wdfa qref np la uhg nhoy lh xrs broi nhn etx mbfk mqn itl fmsq fjoa hc rnu yaa qy scf if jo cfm rn wotj bppj qo cii fex bjj uuk ma lmjx jpsg loxq aw ko wwq qc uu xdmv rtc ath qfuu iefb glwz ve pasx snb cg bp spce kc ql vgk us mwb ybt jbo pf eun za vot vi bw nz ul fgic nqs wvbg wozy nv hj ot olw xa vy lw ez cyp bfin qe py eure iqmv aea uyeb tvq hwh swc pp euuf skfj qsuw uchx lpn ovig rqb ko skjt qmt fs aa ezr ch xqal aqc yciu nb ev jkl piu of dyc bvhj avx norx remz jhq qrz cpg dw kb vvlp madf klx vvfk wo qyt kqsr ukcm wkx qa rfpx wn yy yb zv tdmx vpy ix juzh cg lj dk jkja mtp ux wmk ci yc drc tcp nm bznh wdwa 
ঢাকা, সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আগামীকাল আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে দেশের স্বাধীনতা অর্জনে নেতৃত্বদানকারী দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল।
এদেশের বৃহত্তম ও সর্ব প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ‘প্লাটিনাম জয়ন্তী’ উদযাপন করবে। গত সাড়ে সাত দশক ধরে আওয়ামী লীগের পথচলা ছিল গৌরবোজ্জ্বল। দীর্ঘ এই পথচলায় সংগঠনটি বাঙালি জাতির অধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে সকল প্রতিবন্ধকতা জয় করে সফলতার মুকুটে সংযুক্ত করেছে একের পর এক পালক। পৃথিবীর খুব কম সংগঠন আছে যারা ধারাবাহিক সাফল্য নিয়ে ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করার সৌভাগ্য অর্জন করেছে। অনুরূপভাবে গৌরব, সাফল্য ও অর্জনের সঙ্গে আওয়ামী লীগ তার প্রতিষ্ঠার রজতজয়ন্তী ও সুবর্ণ জয়ন্তী পালনের বিরল সৌভাগ্যের অধিকারী। দিবসটি উপলক্ষে দলটির পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।
১৯৪৯ সালের ২৩ জুন পুরনো ঢাকার ঐতিহ্যবাহী রোজ গার্ডেনে পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে এই রাজনৈতিক দলটি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার সময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কারাগারে আটক ছিলেন। তাঁকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়। কেন্দ্রীয়ভাবে নিখিল পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ করা হলেও পরবর্তী সময়ে অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক আদর্শের অধিকতর প্রতিফলন ঘটানোর জন্য এর নাম ‘আওয়ামী লীগ’ করা হয়।
১৯৫৪ সালের নির্বাচনে বিজয়ের পর ১৯৫৫ সালে অনুষ্ঠিত আওয়ামী মুসলিম লীগের কাউন্সিলে দলের নাম থেকে মুসলিম শব্দটি বাদ দেওয়া হয়। আর ‘পূর্ব পাকিস্তান’ শব্দ দুইটি বাদ পড়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় থেকে। বাংলাদেশে স্বাধীনতা ঘোষণা করার পর থেকে প্রবাসী সরকারের সব কাগজপত্রে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নাম ব্যবহার শুরু হয়। ১৯৭০ সাল থেকে এই দলের নির্বাচনী প্রতীক নৌকা। পরবর্তী সময়ে দেশের অন্যতম প্রাচীন এই সংগঠনটি বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধসহ প্রতিটি গণতান্ত্রিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে এদেশের গণমানুষের সংগঠনে পরিণত হয়।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নেতৃত্বের জন্যই আওয়ামী লীগকে ’৭০-এর নির্বাচনে পূর্ব-বাংলার মানুষ তাদের মুক্তির ম্যান্ডেট দিয়েছিল। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই ভূখন্ডে প্রতিটি প্রাপ্তি ও অর্জন সবই আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই হয়েছে। মাতৃভাষা বাংলার মর্যাদা রক্ষা থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত বাঙালির অর্জন এবং বাংলাদেশের সকল উন্নয়নের মূলেই রয়েছে আওয়ামী লীগ।
রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ এবং বিশিষ্টজনরাও মনে করেন, আওয়ামী লীগের অর্জন পাকিস্তান আমলের গণতান্ত্রিক অর্জন। এই দলের অর্জন বাংলাদেশের অর্জন। জাতির জন্য যখন যা প্রয়োজন মনে করেছে, সেটি বাস্তবায়ন করেছে দলটি। ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযুদ্ধ, সব আন্দোলন সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে বাংলাদেশ গঠনে সর্বোচ্চ ভূমিকা পালন করেছে আওয়ামী লীগ। স্বাধীনতার পর থেকে দেশ বিরোধীদের ষড়যন্ত্র সত্ত্বেও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ধ্বংস্তুপ থেকে উঠে এসে স্বৈরশাসনের অবসান ঘটিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে।
আওয়ামী লীগ দেশের অন্যতম পুরনো, অসাম্প্রদায়িক, সর্ববৃহৎ ও বাঙালির জাতীয় মুক্তির সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারী রাজনৈতিক দল। আর অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার কাজ প্রথম শুরু করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এরআগে বঙ্গবন্ধু শুরুতেই পাকিস্তানে একটি অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দল গঠনের কথা ভাবছিলেন। তিনি মনে করতেন পাকিস্তান হয়ে যাওয়ার পর সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানের আর দরকার নাই। একটা অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান হবে, যার একটা সুষ্ঠু ম্যানিফেস্টো থাকবে।
এই ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু তাঁর ‘অসমাপ্ত আতœজীবনী’তে লিখেন, ‘আমি মনে করেছিলাম, পাকিস্তান হয়ে গেছে সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানের দরকার নাই। একটা অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান হবে। যার একটা সুষ্ঠু ম্যানিফেস্টো থাকবে। ভাবলাম, সময় এখনও আসে নাই। তাই যারা বাইরে আছেন তারা চিন্তাভাবনা করেই করেছেন।’
’৫২-এর ভাষা আন্দোলন, ’৫৪-এর যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, আইয়ুবের সামরিক শাসন-বিরোধী আন্দোলন, ’৬৪-এর দাঙ্গার পর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা, ’৬৬-এর ছয় দফা আন্দোলন ও ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানের পথ বেয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের ২৪ বছরের আপোষহীন সংগ্রাম-লড়াই এবং ১৯৭১ সালের নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধ তথা সশস্ত্র জনযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ওই বছরের ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয় অর্জনের মধ্যদিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় বাঙালির হাজার বছরের লালিত স্বপ্নের ফসল স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।
পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার ব্যর্থ চেষ্টা হলেও দীর্ঘ একুশ বছর লড়াই সংগ্রামের মাধ্যমে ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জয়ী হয়ে ২৩ জুন দলটি ক্ষমতায় ফিরে আসে। পরবর্তীতে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের অপশাসন, দমন পীড়নের বিরুদ্ধে আন্দোলন এবং অগণতান্ত্রিক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে আওয়ামী লীগ ‘দিন বদলের সনদ’ ঘোষণা দিয়ে ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণের ভোটে পুনরায় বিজয় অর্জন করে এবং সেই থেকে টানা ৪ বার নির্বাচিত হয়ে সরকার গঠন করে। আওয়ামী লীগ সরকার জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচারের রায় কার্যকর করেছে। ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল’ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছে এবং রায়ও কার্যকর করা হচ্ছে। সংবিধানে পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলের পথ বন্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও গত ১৫ বছরে দেশের অভাবনীয় উন্নয়ন সাধন করে একটি উন্নয়নশীল দেশে পরিনত হয়েছে। তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত উন্নয়নের সুফল প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছে।
১৯৮১ সালের ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অধিবেশনে সংগঠনের সভাপতি নির্বাচিত হন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। দীর্ঘ ৬ বছরের নির্বাসন শেষে ১৯৮১ সালের ১৭ মে আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করেন। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা নব উদ্যোমে সংগঠিত হয়। জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বাঙালি জাতির হারানো গণতান্ত্রিক অধিকার পুনরুদ্ধারের এক নবতর সংগ্রামের পথে যাত্রা শুরু করে আওয়ামী লীগ।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরে শেখ হাসিনা গত ৪ দশকেরও বেশি সময় ধরে এই দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্ব এই দলের নেতাকর্মীদের প্রেরণার উৎস এবং তা সংগঠনকে করেছে সমৃদ্ধ। শেখ হাসিনার আপসহীন, সুদক্ষ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে স্বৈরতন্ত্রের চৌহদ্দি পেরিয়ে গণতন্ত্রের স্বাদ পেয়েছিল বাংলার জনগণ। কালের বিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আজ ডিজিটাল বাংলাদেশের পথ পেরিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশের স্বাপ্নিক অভিযাত্রী আওয়ামী লীগ।
বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পথপরিক্রমায় অনেক অশ্রু, ত্যাগ আর রক্তের বিনিময়ে বাঙালি জাতি ফিরে পায় ‘ভাত ও ভোটের অধিকার’; দীর্ঘ স্বৈরশাসনের অবসানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় গণতান্ত্রিক অভিযাত্রা। আজ বঙ্গবন্ধু কন্যা, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে ও সুদক্ষ রাষ্ট্র পরিচালনায় সুশাসন, স্থিতিশীল অর্থনীতি, কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি ও খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন, উন্নয়নে গতিশীলতা, ডিজিটাল বাংলাদেশ, শিক্ষার প্রসার, স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণ, কর্মসংস্থান, বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী, খাদ্য নিরাপত্তা, নারীর ক্ষমতায়নসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে যুগান্তকারী উন্নয়নের ফলে বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে একটি আত্মমর্যাদাশীল জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে উন্নীত হয়েছে।
আওয়ামী লীগের ইতিহাস, বাঙালি জাতির গৌরবোজ্জ্বল অর্জন ও সংগ্রামের ইতিহাস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাসহ বাঙালি জাতির যা কিছু শ্রেষ্ঠ অর্জন, তার মূলে রয়েছে জনগণের এই প্রতিষ্ঠানের নেতৃত্ব। জন্মলগ্ন থেকে এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের শক্তির উৎস জনগণ, শক্তির উৎস সংগঠনের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।
আওয়ামী লীগের শুভ জন্মদিন ঐতিহাসিক ২৩ জুন অঙ্কুরিত হয়েছিল ‘স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্নসূত্র’। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রেখে আওয়ামী লীগের সকল নেতা-কর্মী এবং সমর্থকরা শত প্রতিকূলতা ও ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে আওয়ামী লীগকে আজ মজবুত ভিত্তির উপর দাঁড় করিয়েছে।
আওয়ামী লীগের লক্ষ্য-দেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের ‘সোনার বাংলাদেশ’ এবং বাঙালি জাতিকে বিশে^র বুকে একটি আত্মমর্যাদাশীল জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা। ৭৫ বছরে দেশ আজ উন্নয়ন, অগ্রগতি এবং সাফল্যের জয়গানে মুখরিত। অপ্রতিরোধ্য আওয়ামী লীগ কেবল অতীত বর্তমান নয়, বাংলাদেশের ভবিষ্যতের নির্মাতা।
আগামীকাল ২৩ জুন ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী (প্লাটিনাম জয়ন্তী) উপলক্ষ্যে আওয়ামী লীগ ইতোমধ্যে ১০ দফা কর্মসূচি ঘোষণা করেছে এবং ধারাবাহিকভাবে কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।
আওয়ামী লীগের কর্মসূচির মধ্য রয়েছে, রোববার সূর্য উদয় ক্ষণে কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও দেশব্যাপী আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন।
সকাল ৭ টায় ধানমন্ডি বত্রিশ নম্বরস্থ ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন।
এছাড়াও সকাল সাড়ে ১০টায় টুঙ্গিপাড়ায় চিরনিদ্রায় শায়িত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর সমাধিতে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের একটি প্রতিনিধি দল শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন।
প্রতিনিধি দলের সদস্যরা হলেন: সভাপতিম-লীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ এমপি, সভাপতিম-লীর সদস্য শাজাহান খান এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী এমপি, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক বেগম শামসুন্নাহার এমপি, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা এমপি, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ সদস্য সাহাবুদ্দিন ফরাজী প্রমুখ।
এদিকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করা হবে। এরপর দুপুর ২ টা ৩০মিনিটে আলোচনা সভা ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করনে।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দলের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, আওয়ামী লীগের ইতিহাস-ঐতিহ্য নিয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ কেন্দ্রীয় কর্মসূচির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কর্মসূচি গ্রহণের পাশাপাশি বিভিন্ন উপযোগী কর্মসূচির মাধ্যমে জাঁকজমকপূর্ণভাবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করার জন্য আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের জেলা/মহানগর, উপজেলা/থানা, পৌর/ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড শাখাসহ সকল স্তরের নেতা-কর্মী সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

দৈনিক নবচেতনার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন