ঢাকা, বুধবার, ১৬ জুলাই, ২০২০, ১ শ্রাবণ, ১৪২৭

সরাইলে দখল হয়ে যাচ্ছে অরুয়াইল বাজারে সরকারি সম্পত্তি

তাসলিম উদ্দিন, সরাইল প্রতিনিধিঃ মেঘনা- তিতাস নদী ঘিরে সরাইল উপজেলার ইতিহাস আর ঐতিহ্যবাহী এ দু-নদীর চড়ে গড়ে উঠেছে অরুয়াইল বাজার। ব্রাক্ষণবাড়িয়া সরাইল উপজেলার অরুয়াইল বাজারে এখন চোখের সামনে দখল হয়ে যাচ্ছে সরকারি সম্পত্তি। সরকারি সম্পত্তি দখল নিয়ে অরুয়াইল বাজার এলাকায় মুখরোচক আলোচনা রয়েছে।

জানাযায়, সরাইল উপজেলার অরুয়াইল বাজার এলাকায় সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে। চারপাশ থেকে সরকারি জায়গা দখল করে তারা স্থায়ী ভবন দোকান নির্মাণ করছেন। স্হানীয়দের অভিযোগ, চোখের সামনে সরকারি সম্পত্তি দখল হলেও তাদের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। অরুয়াইল বাজার এলাকায় প্রায় আট থেকে নয় শত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বহুতল আবাসিক ভবন গড়ে উঠেছে। আরও নতুন নতুন স্থাপনার নির্মাণকাজ চলছে। আর এসব স্থাপনা নির্মাণে একটু একটু করে দখল করা হয়েছে নদীর জমি।

গতকাল শনিবার সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয়দের দেওয়া তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়। পরিচয় গোপন রাখার শর্তে স্থানীয়রা আরও বলেন, দখলদার প্রত্যেকেই প্রভাবশালী। কোনো ধরনের নিয়মের তোয়াক্কা না করে তারা ভবন দোকান নির্মাণ করছেন। কখনো যদি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে,নদীর পারে সরকারি ঘাটলা এখন দখলে নিয়েছে। নদীর পানি ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই।ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের ছত্রছায়ায় থেকে তারা এই দখল প্রক্রিয়া চালিয়ে যাচ্ছেন। দখলদাররা নিজেদের ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের আত্মীয় কিংবা বন্ধু দাবি করেন। আর্থিকভাবেও তারা বিত্তশালী। স্থানীয় ৭০ বছরের বৃদ্ধ বলেন, অরুয়াইল বাজারের সামনে যা দেখেন সব সরকারি জায়গা কি আর কমু -!অরুয়াইল বাজারের বাথরুম দে’খা-! বুঝতে পারেন না, বাজারে সব সরকারি জায়গা দখল হইছে?

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অরুয়াইল ইউপি চেয়ারম্যান ও বাজার কমিটির সভাপতি দখলের কথা স্বীকার করে বলেন, “ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙিয়ে অনেকে অনৈতিক সুবিধা নেয়। আমিও চাই, যারা অবৈধভাবে সরকারি জমি দখল করে আছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক। কোনো রাজনৈতিক পরিচয়কে যেন পাত্তা না দেওয়া হয়। অরুয়াইল বাজারের সরকারি জায়গা অনেকেই দখল করেছেন।

এ প্রসঙ্গে সরাইল উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ফারজানা প্রিয়াঙ্কা বলেন, সরকারি সম্পত্তি যারা দখল করেছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থার নেওয়া হবে। কোনভাবে সরকারি জায়গা দখল করে রাখতে পারবে না।

সরাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ এস এম মোসা’র সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অরুয়াইল বাজারে সরকারি সম্পত্তিতে তোলা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে আমরা অভিযান পরিচালনা করবো। আজ হুক কাল হুক কাউকে সরকারি জমি দখল করতে দেওয়া হবে না। উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে আলাপ করে দখলদারদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।