ঢাকা, সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০, ২৯ আষাঢ়, ১৪২৭

করোনার মধ্যেই চলচ্চিত্র উৎসবের সিদ্ধান্ত

বিশ্বজুড়ে চলছে মহামারি করোনাভাইরাসের দাপট। এমন অবস্থায় দারুণ সংকটে বিশ্ব চলচ্চিত্র। বন্ধ রয়েছে সিনেমা হল, বন্ধ আছে সব রকম শুটিং। করোনা পরিস্থিতিতে একাধিক আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবও ইতিমধ্যেই বাতিল হয়েছে।

এর মধ্যেই শোনা যাচ্ছে কলকাতায় চলচ্চিত্র উৎসবের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে তা হবে সীমিত আকারে।

করোনা আতঙ্ক ও আম্ফানের বিপর্যয় সামলানোর মধ্যে আসন্ন ২৬তম কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব হবে, কি হবে না এই নিয়ে যথেষ্ট উদ্বেগও তৈরি হয়েছিল। তবে সিনেপ্রেমীদের জন্য আনন্দের খবর, এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিন্তু করোনার কালবেলায় স্বাভাবিকবশতই খরচের ব্যাপারটি মাথায় রাখতে হচ্ছে। কাটছাঁট হবে বাজেটও।

কলকাতা ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল হলেও অনুষ্ঠানের জৌলুস সেরকমভাবে থাকছে না। এই করোনা পরিস্থিতির জন্য ভয়ে ভয়েই করেই সারার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। জাঁকজমকপূর্ণভাবে অনুষ্ঠান না করে খরচ কমানোর কথা ভাবা হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক উৎসব আয়োজক সংস্থা ‘ফিয়াপ’ এর নিবন্ধিকরন অক্ষুন্ন রাখতে গেলে উৎসব হওয়াটা জরুরি। সেজন্যই এমন অশান্ত পরিবেশেও এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, ১১ জুন চলচ্চিত্র উৎসব কমিটির প্রথম একটি বৈঠক হয়েছে নন্দনে। উপস্থিত ছিলেন দুই বিভাগীয় মন্ত্রী শ্রী অরূপ বিশ্বাস ও ইন্দ্রনীল সেন এবং উৎসব পরিচালক রাজ চক্রবর্তীসহ কোর কমিটির কিছু সদস্য। এই মুহূর্তের সামাজিক পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে সেই মিটিংয়েই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, চলচ্চিত্র উৎসব সীমাবদ্ধ থাকবে শুধুমাত্র নন্দন চত্বর-সহ সরকারি সিনেমা হলগুলোতে।

আপাতভাবে উৎসবের দিন ধার্য করা হয়েছে ৫ থেকে ১২ নভেম্বর। সম্ভবত, উৎসবের উদ্বোধনও ফিরে আসবে নন্দন চত্বরেই।

এবার ছবির সংখ্যা অনেকটাই কমানো হবে, উৎসবে দেশ-বিদেশের অতিথিদের আসার ব্যাপারটাও এখনও অনিশ্চিত। এমনকী, বাইরের দেশ থেকে বিচারকরা আসবেন কিনা সেসব নিয়েও আলোচনা চলছে।