ঢাকা, বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘আগস্ট মাস এলে বিএনপি উন্মাদ হয়ে যায়’

আগস্ট মাস এলে বিএনপি উন্মাদ হয়ে যায় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম।

তিনি বলেন, আগস্ট মাস এলে বিএনপি উন্মাদ হয়ে যায়, খুনিদের মতো কথা বলে। একাত্তরের খুনিদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তারা শেখ হাসিনার সরকারকে উৎখাত করতে চায়।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর প্রাঙ্গণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদৎবার্ষিকী উপলক্ষে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের প্রসঙ্গ টেনে বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর পাকিস্তানের এজেন্ট, দোসররা ক্ষমতার মসনদে বসে গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক মেরেছিল। বাংলাদেশকে অন্ধকারে নিপতিত করেছিল। খুনি জিয়াউর রহমান ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার বন্ধ করেছিল। শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এসে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করেছেন।

নাছিম বলেন, সাম্প্রদায়িক, দেশবিরোধী শক্তি একাত্তরে পরাজিত হলেও নিঃশেষ হয়নি। তারা এখনো দেশে বিদেশে ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। বিএনপি প্রতিদিন গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তারা সাম্প্রদায়িক শক্তির উত্থান ঘটিয়ে দেশকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যেতে চায়।

তিনি বলেন, আমরা জাতির পিতার আদর্শের সন্তান। কেউ হত্যা, খুন, ধ্বংসের রাজনীতি করলে আমরা মোকাবিলা করবো। খুনিদের বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে প্রতিহত, পরাজিত করে অপরাজনীতি থেকে নিশ্চিহ্ন করে দেব।

নিরুপায় হয়ে সরকার জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ চায় দেশের মানুষ ভালো থাকুক। করোনা, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্ব মন্দার কবলে পড়েছে। শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্বের অন্তত ২০টি দেশে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে। কোনো উপায় ছিল না, তাই বাংলাদেশেও দাম বাড়াতে হয়েছে।

জ্বালানি তেলের দাম কমানোর ইতিহাস শেখ হাসিনা সরকারের আছে উল্লেখ করে বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, সংকট কাটিয়ে উঠতে সরকার সাশ্রয়ী নীতি নিয়েছে। সাশ্রয়ী হওয়া মানে অভাব নয়। দেশ যাতে বড় সংকটে না পড়ে এজন্য সরকার ব্যবস্থা নিয়েছে। যারা চায় না দেশ এগিয়ে যাক, তারা সমালোচনা করবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন বলেন, বাঙালি জাতি রাষ্ট্রের ভিত্তি তৈরি করেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বাঙালি জাতীয়তাবাদের চরম স্ফুরণ ঘটিয়েছিলেন। যার কারণে আজ আমরা স্বাধীন দেশের বাতাসে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারছি। ষড়যন্ত্রকারীরা তাকে হত্যা করে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে রুদ্ধ করে দিতে চেয়েছিল।

দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, দুর্যোগ, দুর্বিপাক মোকাবেলা করে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। এরপরও ষড়যন্ত্রকারী সরকার উৎখাত করার ষড়যন্ত্র করছে। দেশের স্বাধীন পতাকা যাতে রাজাকার, আলবদরদের গাড়িতে আবার না উঠে এজন্য সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

এ ছাড়াও সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া। আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চুর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবুর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, জাতীয় পরিষদ ও ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Email this to someone
email
Print this page
Print
Pin on Pinterest
Pinterest

দৈনিক নবচেতনার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন