ঢাকা, সোমবার, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

তিস্তায় বন্যার আশঙ্কা

টানা বৃষ্টি আর উজানের ঢলের কারণে তিস্তা নদীতে পানি কখনো কমছে আবার কখনো বাড়ছে। অতিবৃষ্টি হলে যে কোনো সময় নদীর পানি উপচে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এদিকে যে কোনো বিপদ মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) দুপুর ১২টার দিকে লালমনিরহাটে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার ৫২.৬০ মিটার ছুঁয়ে প্রবাহিত হয়। তবে বিকেল ৩টার দিকে ৮ সেন্টিমিটার কমে বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

ডালিয়া তিস্তা ব্যারাজ প্রকল্পের পানি পরিমাপক নুরুল আমিন একথা জানান।

নুরুল আমিন জানান, আজকে (বৃহস্পতিবার) আরো দুইবার পানি পরিমাপ করা হবে। পানি কমা বাড়া করছে। সব সময় নজর রাখা হচ্ছে।

সরেজমিন দেখা গেছে, তিস্তা ব্যারেজ পয়েন্টে পানি কিছুটা কমে প্রবাহিত হচ্ছে। জেলার কিছু কিছু অঞ্চলে জলাবদ্ধতা রয়েছে। ছোট নদীগুলোর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি। এসব অঞ্চল ও নদী লাগোয়া কিছু গ্রামে পানি ঢুকে পরেছে।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘একটি পজেটিভ দিক হলো ব্রহ্মপুত্রের পানি এখনো বিপদসীমার নিচে আছে। তাই দ্রুত পানি নেমে যাচ্ছে। ভারি বৃষ্টিপাত হলে বন্যা হবে। কিছু জায়গায় বন্যার সিম্পটম পাওয়া গেছে।‘

লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, ‘তিস্তার পানি কখনো কমছে কখনো বাড়ছে। আমরা সব সময় খোঁজ খবর রাখছি। প্লাবনের মত বড় কোনো ঘটনা এখনো ঘটেনি। আমাদের হাতে খাদ্যসহ সব সহায়তা রয়েছে। যখনই প্রয়োজন পরবে আমরা তখনই বরাদ্দ দিতে পারবো।’