ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কক্সবাজারে প্রশাসন একাডেমির জন্য ৭০০ একর বনভূমি বরাদ্দ স্থগিত

কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন শুকনা ছড়িতে প্রশাসন একাডেমির নাম দিয়ে লীজ নেয়া ৭০০ একর বনভূমির লীজ অবশেষে তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।
আজ সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মুজিবুর রহমান মিয়া এবং বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার অবকাশকালীন বেঞ্চ এই আদেশ দেন। একই সঙ্গে মন্ত্রীপরিষদ সচিব, সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের সচিব, বন সচিব, ভূমি সচিবের বিরুদ্ধে এ বিষয়ে জবাব দিতে রুল নিশি জারি করেছেন হাইকোর্ট।

জানা যায়, প্রশাসন একাডেমির নাম দিয়ে সমুদ্র সৈকত শহর কক্সবাজারের ৭০০ একর বনভূমি নানান তথ্য গোপন করে সম্প্রতি লীজ নেয়া হয়। নামমাত্র টাকায় এ বিশাল সম্পদ লীজের বিষয়ে জানাজানি হলে বিষয়টি নিয়ে কক্সবাজার নাগরিক ফোরামসহ সচেতন মহল সোচ্চার হয়ে উঠে। এছাড়াও স্থানীয় সচেতন বাসিন্দা, পেশাজীবী ও পরিবেশবাদী সংগঠনের ব্যানারে চলে সভা সমাবেশ ও মানববন্ধনসহ বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচি। এ অবস্থায় জেলা বাসির স্বার্থে কক্সবাজার নাগরিক ফোরাম উচ্চ আদালতে রিট দায়ের করার উদ্যোগ নেন। এতে কক্সবাজার নাগরিক ফোরামের পক্ষে প্রথিতযশা আইনজীবী অ্যাডভোকেট একেএম মনিরুজ্জামান কবির একটি রিট দায়ের করেন। রিট নং ৭৬০১/২১। এই রিটের শুনানি শেষে গঠিত বেঞ্চের বিচারক বিষয়টি আমলে নিয়ে উল্লেখিত আদেশ দেন।

এ আদেশ পাওয়ার পর কক্সবাজার নাগরিক ফোরামের সভাপতি আ ন ম হেলাল উদ্দিন প্রতিক্রিয়ায় বলেন, কক্সবাজারের সম্পদ, জনগণের সম্পদ, জাতীয় সম্পদ রক্ষা করার জন্য কক্সবাজারের মানুষ ঐক্যবদ্ধভাবে সোচ্চার। এই মাটির সন্তানরা তাদের প্রিয় ভূমিকে খুব ভালোবাসে। ৭০০ একর রক্ষার জন্য যারা প্রতিবাদ জানিয়েছেন। গণস্বাক্ষর করেছেন। সবাইকে নাগরিক ফোরামের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি আনম হেলাল উদ্দিন।

পাশাপাশি সঠিক তথ্য গোপন রেখে সরকারের যারা এই সংরক্ষিত বনভূমির প্রস্তাব পাঠিয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধেও আইনগতভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, এই লীজের বিষয় নিয়ে প্রতারণা করা হয়েছে। সুস্পষ্টভাবে সত্য গোপন করা হয়েছে। বিসিএস প্রশাসন প্রশিক্ষণ একাডেমি করার মতো আরো অনেক জমি আছে। জাতীয় ঐতিহ্য ধ্বংস করে এই একাডেমি করার কোনো যৌক্তিকতা নেই। উচ্চ আদালতের এই আদেশ কক্সবাজারবাসীর এক ঐতিহাসিক বিজয়।