ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিশুর অন্ধত্ব কমানোর লক্ষ্যে বিএসএমএমইউয়ে আরওপি সেন্টার চালু

প্রতিরোধযোগ্য শিশু অন্ধত্ব কমানোর লক্ষ্য নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব চিকিৎসা বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চালু হলো একটি রেটিনোপ্যাথি অব প্রিম্যাচুরিটি (আরওপি) সেন্টার।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেবিন ব্লকের তৃতীয় তলায় এর উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ। সপ্তাহে তিন দিন শনি, সোম ও বুধবার এই ক্লিনিকে অপরিণত নবজাতকদের সেবা দেওয়া হবে।

 

বিএমডিসির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ, স্বাস্থ্যশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন এবং বিএসএমএমইউ উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. সাইফ উদ্দিন আহমেদ বিশেষ অতিথি হিসাবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অরবিস ইন্টারন্যাশনাল ও পিটার গিলগ্যান ফাউন্ডেশনের সহায়তায় এ কেন্দ্র স্থাপিত হয়েছে।

অরবিস ইন্টারন্যাশনালের কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. মুনির আহমেদ সম্মানিত অতিথি হিসাবে অনুষ্ঠানে যোগ দেন। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. জাফর খালেদ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এবং সঞ্চালনা করেন চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ডা. তারিক রেজা আলী।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিএসএমএমইউ পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. নজরুল ইসলাম খান, চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. শফিকুল ইসলাম, চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ডা. নুজহাত চৌধুরী প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, রেটিনোপ্যাথি অব প্রিমেচিউরিটি (আরওপি) ক্লিনিক চালু হওয়ায় অনেক নবজাতক পৃথিবীর আলো দেখতে পাবে। অন্ধত্ব প্রতিরোধ ও অন্ধত্ব নিবারণ ও দূরীকরণে আরওপি ক্লিনিক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

 

তিনি বলেন, যেসব নবজাতক অপরিণত বয়সে স্বল্প ওজন নিয়ে জন্ম নেয় তাদের অনেকের চোখে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা থাকে। সময়মতো চিকিৎসা না হলে কোনো কোনো নবজাতক অন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু চিকিৎসার মাধ্যমে তাদের অন্ধত্বের অভিশাপ থেকে রক্ষা করা সম্ভব।