ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ফেনীতে পুলিশের ইয়াবা পাচার মামলায় ৩ ম্যাজিস্ট্রেটের সাক্ষ্যগ্রহণ

ফেনীতে পুলিশের ইয়াবা পাচার মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছেন তিনজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) ফেনীর ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ কায়সার মোশাররফ ইউসুফের আদালতে সাক্ষ্য দেন তারা।

ফেনী জেলা জজ কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রশাসনিক কর্মকর্তা জহির আহমদ মজুমদার জানান, আলোচিত এ মামলায় তিনজন জ্যেষ্ঠ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। তৎকালীন সময়ে ফেনীতে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে আসামিদের ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করেন তারা। তাই মামলার গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী হিসেবে তাদের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

 

সাক্ষীরা হলেন-কক্সবাজার জেলা জজ আদালতের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আলমগীর মুহাম্মদ ফারুকী, চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন ও ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসাইন।

 

জানা যায়, ২০১৫ সালের ২০ জুন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লালপোল মুহুরী ফিলিং স্টেশনের সামনে একটি প্রাইভেটকার থেকে ৬ লাখ ৮০ হাজার পিস ইয়াবা ও নগদ ৭ লাখ টাকাসহ পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. মাহফুজুর রহমান ও গাড়ি চালক জাবেদ আলীকে আটক করে র‌্যাব-৭ এর একটি দল। পরে র‌্যাবের নায়েক সুবেদার মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন।

 

ফেনী জেলা জজ কোর্টের পিপি হাফেজ আহাম্মদ জানান, ২৭ কোটি ২০ লাখ টাকা মূল্যের ইয়াবা উদ্ধারের আলোচিত এ মামলার তদন্তকালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বিভিন্ন সময়ে ৯ জনকে গ্রেফতার করে। তাদের মধ্যে পুলিশের এএসআই মো. মাহফুজুর রহমান, কাশেম আলী, তোফাজ্জল হোসেন, জাবেদ আলী ও গিয়াস উদ্দিন ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। দীর্ঘ তদন্ত শেষে সিআইডি পরিদর্শক মো. ইউছুফ মিয়া এ মামলায় ১৪ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেন।