ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
সেভ দ্য চিলড্রেনের প্রতিবেদন

বিশ্বে কয়েকশ’ কোটি শিশুর শিক্ষা চরম ঝুঁকিতে

বিশ্বের এক চতুর্থাংশ দেশে কয়েকশ’ কোটি শিশুর শিক্ষা ধ্বসে পড়ার চরম অথবা উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বৈশ্বিক সংস্থাটি সেভ দ্য চিলড্রেন। সোমবার শিশুদের অধিকার নিয়ে কাজ করা সংস্থাটি তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ আশঙ্কা প্রকাশ করে।

গবেষণায় প্রাপ্ত তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে সংস্থাটি বলছে, জলবায়ু পরিবর্তন, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের ঘাটতি, বাস্তুচ্যুতি, বিদ্যালয়ে হামলা ও ডিজিটাল সংযোগের সংকটের মতো নানা কারণে বিদ্যালয়ে শিশুদেও পাঠদান বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বের ৪৮টি দেশে শিক্ষা ধ্বসে পড়ার দ্বারপ্রান্তে রয়েছে। এর কারণ হিসেবে সংস্থাটি বলছে, ওইসব দেশে নতুন শিক্ষা-বছর শুরু হতে চলেছে; কিন্তু কোভিড-১৯ এর নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা পর্যাপ্ত না থাকায় শ্রেণীকক্ষে উপস্থিত হতে পারছে না শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষা গ্রহণের এ প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হওয়ার পেছনে আরও কারণ হিসেবে বিশ্ব সংস্থাটি বলছে, করোনা মহামারির কারণে অর্থনৈতিক প্রভাব ও শিক্ষা ব্যবস্থার উপর অব্যহতভাবে আঘাত শিশুদের বিদ্যালয়ে উপস্থিত হওয়াকে বাধাগ্রস্ত করছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মহামারির কারণে বিশ্বের ২৫ কোটি ৮০ লাখ শিক্ষার্থী স্কুলে যাওয়া বন্ধ রেখেছে, যারা হয়তো আর বিদ্যালয়ে ফিরবে না। বৈশ্বিক এ শিক্ষা-সংকটের দিকে নজর দেয়ার জন্য বিশ্ব নেতাদের আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

সেভ দ্য চিলড্রেন বলছে, বিশ্বের ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, আফ্রিকার দেশ কঙ্গো, নাইজেরিয়া, সোমালিয়া, সুদান, দক্ষিণ সুদান, মালি, লিবিয়া ও এশিয়ার আফগানিস্তানে শিক্ষা ব্যবস্থা চরম ঝুঁকিতে রয়েছে। সিরিয়া ও ইয়েমেনের পরিস্থিতি আরও খারাপ।

কোন শিশুরা বেশি ক্ষতির মুখে রয়েছে? সেভ দ্য চিলড্রেনের প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে জানি যে, কোভিড-১৯ এর কারণে স্কুল বন্ধ হওয়ায় দারিদ্র শিশুরা বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে।’

পরিস্থিতি সামাল দিতে আটটি পরামর্শ দিয়েছে সেভ দ্য চিলড্রেন। এর মধ্যে রয়েছে, শিশুদের বিদ্যালয়ে উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হবে; বাদ পড়া শিশুদের ফেরানোর দিকে নজর দিতে হবে; বিদ্যালয়ে সমতা নিশ্চিত করতে হবে।