ঢাকা, বুধবার, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

এবারের ঈদটা আমার কাছে স্পেশাল: পিয়া

ঈদ নিয়ে আসে শান্তি আর আনন্দের সওগাত। কিন্তু করোনা সংকটের কারণে অনেকটা ঘরবন্দি ঈদ উদযাপন করছেন মানুষ। মডেল-অভিনেত্রী পিয়া জান্নাতুলও পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগ করে নিচ্ছেন। তবে এবারের ঈদটা তার কাছে স্পেশাল। কারণ প্রথমবার সন্তানকে সঙ্গে এই আনন্দ উদযাপন করছেন তিনি।

সঙ্গে আলাপকালে পিয়া জান্নাতুল বলেন—‘এবারের ঈদ আমার কাছে স্পেশাল। কারণ অ্যারেসের (পিয়ার ছেলে) এটি প্রথম ঈদ। ছেলেকে নিয়ে প্রথমবার ঈদ করছি।’

যদি এমন হতো পৃথিবী থেকে করোনা সংকট কেটে গেছে, তাহলে এবারের ঈদটা কীভাবে উদযাপন করতেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে পিয়া বলেন—‘একইভাবে ঈদ উদযাপন করতাম। আলাদাভাবে ঈদ উদযাপনের কোনো কিছু আমার কাছে নেই। সাধারণত ঈদে আব্বা-আম্মার সঙ্গে দেখা করি, শ্বশুরবাড়ি যাই। আসলে ঈদের সময় আমি তেমন কোথাও যাই না। যাওয়ার ইচ্ছা হলেও জায়গা খুঁজে পাই না।’

গত ৭ ফেব্রুয়ারি প্রথমবার মা হয়েছেন পিয়া জান্নাতুল। এখনো অভিনয়ে ফিরেননি। করোনাকালে ফিট থাকতে নিয়মিত জিমে যান তিনি। এ প্রসঙ্গে পিয়া বলেন, ‘আমি জিমে যাওয়া শুরু করেছি বেশ কিছুদিন হলো। সপ্তাহে পাঁচদিন জিমে যাই। করোনা সংকটটা চলছে এক বছরের বেশি সময় ধরে। কিন্তু আমাদের তো বেসিক লাইফটা লিভ করতে হবে। আর সেটা স্বাস্থ্যবিধি পুরোটা মেনেই করতে হবে। ব্যক্তিগত জীবনে স্বাস্থ্যবিধি যথেষ্ট মেনে চলছি। জিম থেকে ফিরে শাওয়ার নেওয়ার পর আমার বাচ্চার কাছে যাই। যেকোনো জিনিস ধরার পর হাত স্যানিটাইজ না করে বেবিকে স্পর্শ করি না। এমনকি আমার বাসার সবাই এটা মেনে চলছি। আসলে এসব মেনেই আমাদের চলতে হবে। কারণ আমরা কেউই জানি না এই সংকট কতদিন থাকবে। এই সংকটের কারণে তো সব কাজ বন্ধ রেখে বসে থাকতে পারবেন না। অনেক সময় অনেকে বলেন, জিম পরে করলেও হবে। কিন্তু এটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। নিজের মন ও শরীরিক অবস্থার বিষয়ে আগে যত্নবান হওয়া উচিত।’

সন্তান-ক্যারিয়ার-পরিবার। এসবের মধ্যে অবসর সময় কীভাবে কাটান? এ প্রশ্ন শুনেই হেসে ফেলেন পিয়া। তার ভাষায়—‘সত্যি কথা বলতে অবসর একেবারেই পাই না। বেবি হওয়ার পর আরো ব্যস্ততা বেড়ে গেছে। তা ছাড়া ব্যবসাটাও আমাকে দেখতে হয়। মডেলিং, ব্র্যান্ডিংয়ের টুকটাক কাজ তো থাকেই। তাই অবসরটা মিলে না বললেই চলে। আর বাচ্চা নিয়ে যখন থাকি তখন হয়তো ওকে নিয়েই টিভি দেখছি। অবসর সময় আর নাই।’