ঢাকা, শুক্রবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিষাক্ত পানি পান করছে প্রায় ১০ কোটি চীনা নাগরিক

চীনের সিংসুহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় দেখা গেছে, চীনে প্রায় ১০ কোটি মানুষ যে খাবার পানি পান করছে তাতে নিরাপদ মাত্রার চেয়ে বেশি বিষাক্ত রাসায়নিক রয়েছে। সিংসুহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি দল পূর্বে করা গবেষণাগুলোর তথ্য ব্যবহার করে, কাপড় থেকে কীটনাশক পর্যন্ত প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যবহার করা রাসায়নিক পলিফ্লুওরোয়ালকিলসের (পিএফএএস) স্তর পর্যবেক্ষণ করেছে। দলটি ৬৬টি শহরের ৫২৬টি সরবরাহকারীর পানির নমুনা সংগ্রহ করে তথ্য গবেষণা করেছে। এ অঞ্চলের জনসংখ্যা প্রায় ৪৫ কোটি। গবেষণায় দেখা গেছে, পিএফএএসের ঘনত্ব শহরগুলোর পানিতে ২০ শতাংশেরও বেশি। যেখানে পিএফএএসের সর্বোচ্চ স্বাভাবিক ঘনত্ব ধরা হয় ১৬ শতাংশ। গবেষকরা জানান, তারা সর্বশেষ অন্তর্দৃষ্টি এবং বিশ্লেষণ পেয়েছেন চীনে হওয়া বড় গবেষণাপত্র ও বিশ্বব্যাপী প্রভাবের নিউজলেটার পর্যালোচনা করে। তবে চীনে জাতীয় সুরক্ষার কোনো মানদণ্ড নেই, তাই এই সমীক্ষা যুক্তরাষ্ট্রের ভার্মন্টের নিয়মকে মানদণ্ড হিসেবে ধরে করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা। গবেষণাটি গত মঙ্গলবার ‘এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স ইউরোপ’ জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। এটি চীনের খাবার পানিতে পিএফএএস স্তর নিয়ে পর্যালোচনা করা প্রথম বিস্তৃত গবেষণা। পিএফএএস উচ্চ মাত্রা থাকা শহরগুলোর মধ্যে পূর্ব চীনের উক্সি, হ্যাংজু এবং সুজহু এবং দক্ষিণাঞ্চলীয় গুয়াংডংয়ের ফোশন শহর রয়েছে। কিন্তু বেইজিং এবং সাংহাইসহ প্রধান শহরগুলোতে এ মাত্রা সীমার মধ্যে রয়েছে। সাধারণভাবে অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় পূর্ব, দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিম চীনে পিএফএএসের মাত্রা বেশি পাওয়া গেছে। পূর্ব চীনে পিএফএএসের গড় ঘনত্ব দেশের উত্তরের তুলনায় ২.৬ গুণ বেশি পাওয়া গেছে। এর কারণ হিসেবে গবেষকরা বৃহৎ শিল্প কার্যক্রম ও উচ্চ জনসংখ্যার ঘনত্বকে দায়ী করেছেন।