ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭

মাস্ক খুললেই করোনার ঝুঁকি বাড়ে ২৩ গুণ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ভ্যাকসিন আসার আগে মাস্ককেই প্রধান ও শক্তিশালী অস্ত্র হিসেবে দেখছেন চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা। তাই সংক্রমণ ঠেকাতে মাস্ক ব্যবহারের কথা বারবার বলে আসছেন তারা। এবার এক গবেষণায় দেখা গেছে, মাস্ক পরা আর না পরা- এই দুই অবস্থায় পার্থক্য আকাশ-পাতাল। মাস্ক না পরা থাকলে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা ২৩ গুণ বেড়ে যায়।

এদিকে গেল ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে ৪ লাখ ৮০ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, যা একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এর মধ্যে শুধু ইউরোপের দেশগুলোতেই আক্রান্ত হয় ২ লাখের বেশি। এ নিয়ে বিশ্বে মোট রোগীর সংখ্যা ৪ কোটি ২১ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। করোনায় মারা গেছেন ১১ লাখ ৪৪ হাজার।

ভারতে হু-হু করে বাড়ছে সংক্রমণ। রোগীর সেবা নিশ্চিত করতে দেশটির পশ্চিমবঙ্গে চিকিৎসকদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা রোগীর চিকিৎসায় রেমডেসিভির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। খবর বিবিসি, এএফপিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের।

ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজির এক গবেষণায় দেখা গেছে, হাঁচি বা কাশির পর বাতাসে ড্রপলেট ছড়ানোর মাধ্যমে ‘কফ ক্লাউড’ তৈরি হয় এবং তা ৫ থেকে ৮ সেকেন্ড থাকে। মাস্ক পরা না থাকলে এর মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ দ্রুত ছড়িতে পড়তে পারে। তবে ওই সময়ের পর আর বাতাসে ভাসমান অবস্থায় থাকতে পারে না ড্রপলেট।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) পরিচালক রবার্ট রেডফিল্ড এ প্রসঙ্গে বলেন, করোনার বিস্তার প্রতিরোধে ভ্যাকসিনের চেয়েও শক্তিশালী সুরক্ষা দেবে মাস্ক। তিনিবলেন, তাদের কাছে বিজ্ঞানসম্মত প্রমাণ রয়েছে যে করোনায় মাস্কই সবচেয়ে ভালো সুরক্ষা প্রদান করছে।

বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডওমিটারসের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ২১ লাখ ১৭ হাজার ৬৮৫ জন। মারা গেছেন ১১ লাখ ৪৪ হাজার ৪৫৪ জন। অবস্থা আশঙ্কাজনক ৭৫ হাজার ১৫৮ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ১২ লাখ ৪০ হাজার ৫৪৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন রেকর্ড ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৩১২ জন, মারা গেছেন ৬ হাজার ৪৭২ জন।

বিশ্ব তালিকায় শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্ত ৮৬ লাখ ৬৪ হাজার ৩৮৫ জন, মারা গেছেন ২ লাখ ২৮ হাজার ৪২৩ জন। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে মোট রোগী ৭৭ লাখ ৬৩ হাজার ৬৭ জন, মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৩৭০ জনের।

বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত ৫৩ লাখ ৩২ হাজার ৬৮৫ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৫৫ হাজার ৯৫৬ জন। চতুর্থ স্থানে রাশিয়ায় মোট রোগীর সংখ্যা ১৪ লাখ ৮০ হাজার ৬৪২ জন, মারা গেছেন ২৫ হাজার ৫২৫ জন। পঞ্চম স্থানে স্পেনে ১০ লাখ ৯০ হাজার ৫৪৬ জন, মারা গেছেন ৩৪ হাজার ৫২১ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে রেমডেসিভির অনুমোদন : গিলিয়েড সায়েন্সেসের ভাইরাস প্রতিরোধী ওষুধ রেমডেসিভিরের আনুষ্ঠানিক অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ)। কোভিড-১৯ রোগের চিকিৎসায় হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য বৃহস্পতিবার এফডিএ ওষুধটির অনুমোদন দেয়। এফডিএর এই পদক্ষেপের পর যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ চিকিৎসায় অনুমোদন পাওয়া প্রথম ও একমাত্র ওষুধ হল রেমডেসিভির। ওষুধটি শিরায় দেয়া হয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের করোনা চিকিৎসায় রেমডেসিভির ব্যবহার করা হয়েছিল।

মন্তব্য করুন