ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ১৪ কার্তিক, ১৪২৭

পুলিশের আয়োজনে দেশব্যাপী নারী ও শিশু নির্যাতন বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত

দিনাজপুর পুলিশ সুপার মো:আনোয়ার হোসেন বলেছেন আপনার পুলিশ আপনার পাশে নারী ও শিশুর প্রতি নির্যাতন বন্ধ ও প্রতিরোধ করা শুধু পুলিশের পক্ষে এককভাবে সম্ভব নয়, আমাদের সকলকেই সম্মিলিতভাব যার যার অবস্থান থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরাধে ঐক্যভাবে কাজ করতে হবে। নারী ও শিশুর প্রতি নির্যাতন বন্ধে ঐক্যবদ্ধভাবেকাজ করতে হবে। যাতে করে শিশু ও নারী নির্যাতনের শিকার না হয়। তাই নারী-পুরুষ প্রত্যককেই সচেতন হতে হবে, ফলে শিশু এবং নারীরা নিরাপদ ও সুরক্ষিত থাকবে। আমাদের সন্তান যদি নির্যাতিত হয় তাহলে আমরা কী করবো। সে কারণেই এ ব্যাপার সচেতনতা বদ্ধি করা খুবই জরুরি। ১৭ অক্টাবর শনিবার দিনাজপুর সদর উপজলার ৯নং আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে বিট পুলিশিং এর আয়োজনে নারী ও শিশু নির্যাতন বিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দিনাজপুরর পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন বিপিএম, পিপিএম (বার) এসব কথা বলেন। ইউনিয়ন পরিষদর চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আস্করপুর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: জিয়াউর রহমান জিয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুজন সরকার ও কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো মোজাফফর হোসেন। অন্যান্যদর মধ্য বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো: ফরহাদ হোসেন, প্যানেল চেয়ারম্যান মো. মোতাহার হোসেন, খানপুর উচ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মাকসদুল হক, কুতইর মাদ্রাসার সুপার মো. পয়গাম আলী, খানপুর বাজার দাখিল মাদ্রাসার সুপার আজগার আলী প্রমুখ।
সারাদেশব্যাপী ক্রমবর্ধমানহারে খুন, ধর্ষণ, নারী নির্যাতন, ইভটিজিং ইত্যাদি অপরাধসমূহ বেড়ে যাওয়ায়, এ ধরনের গুরুতর অপরাধ প্রতিরোধে, মাননীয় আইজিপি মহোদয় নির্দেশনার আলোকে বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক সারা বাংলাদেশের প্রতিটি থানা এলাকায় একযোগে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত নারী নির্যাতন প্রতিরোধে বিট পুলিশিং সমাবেশ’২০ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ সকাল সাড়ে ১১ টার সময় চুয়াডাঙ্গা পৌরসভাধীন সূমীরদিয়া নীলার মোড়ে বিট নং ২, কর্তৃক আয়োজিত বিট পুলিশিং সমাবেশ’ ২০ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, ওসি চুয়াডাঙ্গা সদর থানা, আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান।
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পূর্ব জাফলং ইউনিয়নে নারীর প্রতি সহিংসতা নিরসনে আপনার পুলিশ আপনার পাশে এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় সিলেটের জাফলংয়ে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১৭-১০-২০২০) সকাল ১০ টায় পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের হল রুমে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশের আয়োজনে গোয়াইনঘাট থানার এসআই মোঃ আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে ও আমির মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহাজাহান সিরাজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বিট পুলিশিং সভায় বক্তব্য রাখেন, গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সামছুল আলম, পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মিনহাজুর রহমান, হাজী সোহরাব আলী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ সরোয়ার্দী, গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের অর্থ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মোজাম্মেল হোসেন ছিদ্দিকী মেনন, তামাবিল পাথর চুনাপাথর ও কয়লা আমদানি কারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার হোসেন ছেদু, পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল ইসলাম, ইউপি সদস্য আব্দুল কাদির, সিলেট জেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামিম আল মামুন মনির, গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ করিম মাহমুদ লিমন, আমির মিয়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী সাবিনা ইয়াসমিন, হাজী সোহরাব আলী স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী মমতাজ আক্তার ও ইশিতা আক্তার।
নওগাঁয় নারী নির্যাতন ও সহিংসতা বিরোধ বিট পুলিশ সমাবেশ অনুষ্টিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে নওগাঁ সরকারী ডিগ্রী কলেজ হলরুমে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী রেঞ্জের অ্যাডিশনাল ডিআইজি টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম, পিপিএম। নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহরাওয়ার্দী হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রকিবুল আকতার, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পারভীন আকতার, সাধারন সম্পাদক লিপি সাহা। পৌর বিট নং-১ ও সদর মডেল থানার আয়োজনে সমাবেশে বক্তব্য আরো রাখেন, নওগাঁ সরকারী ডিগ্রী কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম খান, ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর খাজা আব্দুল গনি, প্রাক্তন জেলা কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা হারুন অল রশিদ, সহকারী পুলিশ সুপার সুমাইয়া আকতার, প্রেস ক্লাবের সভাপতি নবীর উদ্দীন, মাওলানা আইযুব আলী, সমাজ সেবক মোশারফ হোসেন, মহিলা পরিষদের সাধারন সম্পাদক নুর জাহান বেগম, নওগাঁ সরকারী ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী ফারিয়া চৌধুরী প্রমুখ।
সারা দেশের মতো রাজশাহীতেও নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশ উপলক্ষ্যে গতকাল সকাল ১০টার সময় নগরীর সাহেববাজার জিরো পয়েন্টে মেট্রোপলিটনের আটটি থানার বিট পুলিশের সদস্যরা একত্রিত হয়। এ সময় বিভিন্ন ফেস্টুন ব্যনারে লিখে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো হয়। পাশাপাশি ধর্ষণের শাস্তি সরুপ নতুন আইনকে সাধুবাদ জানান বিট পুলিশ সদস্যরা। পরে সাহেববাজার মসজিদ প্রাঙ্গনে সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্ত্যবে আরএমপি পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক বলেন, নারীর প্রতি সকলের সহনশীল হতে হবে। এর বাত্যয় ঘটলে আইন অনুয়ায়ী বখাটে ও ইভটিজিংকারীদের ছাড় দেয়া হবে না। কোন পরিচয় নয় বরং তাদের অপরাধি হিসেবেই বিবেচনা করবে পুলিশ। তিনি আরো বলেন রাজশাহী শহরে কোন কিশোর গ্যাং, বাইকার গ্যাং, মাদক, সন্ত্রাসী এবং জঙ্গি থাকবে না। রাজশাহী শহরকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হবে। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন আমরা সবাই ওয়াদা করবো যে, রাজশাহী শহরে কোন ইভটিজিং, কোন মাদক, কোন সন্ত্রাসবাদী, জঙ্গিবাদী কাজকে প্রশ্রয় দিবো না। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন) মোঃ সুজায়েত ইসলাম, উপ-পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া) মোঃ সাজিদ হোসেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা শাখা) আবু আহাম্মদ আল মামুন সহ জনাব শ্যামল কুমার ঘোষ, সেক্রেটারী, হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রীষ্ট্রান ঐক্য পরিষদ।
নীলফামারীতে বিট পুলিশের আয়োজনে র‌্যালী ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৭ই অক্টোবর সকাল ১০.০০টায় চাপড়া ১৭ নং বিট পুলিশে আয়োজনে নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের ডাক্তারখানা বাজারে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী র‌্যালি প্রদক্ষিণ শেষে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। চাপড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহ্াজ খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন।১৭ নম্বর বিট পুলিশের ইনচার্জ মোঃ আরমান, পিএসআই শাহাদত হোসেন, পিএসআই গোলজার হোসেন নীলফামারী জেলার রিপোর্টাস ফোরামের সহসভাপতি ও দৈনিক নবচেতনা পত্রিকার নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি মোঃ হামিদুল্লাহ সরকার, তথ্য প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক মোঃ হাবিবুর রহমান প্রমুখ। সমাবেশেই ইউপি সদস্য, গ্রাম পুলিশ, নারী, পুরুষ, ছাত্র, ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।
মাদক, জঙ্গী, নারীনির্যাতন সংক্রান্ত তথ্য দিন ও প্রতিরোধ গড়ে তুলুন। এই স্লোগানকে সামনে রেখে সারাদেশের ন্যায় ফরিদপুরের সালথায় বিট পুলিশিং কার্যক্রম এবং নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সালথা থানা পুলিশের উদ্যেগে শনিবার বেলা ১১ টায় উপজেলার আটটি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে এই বিট পুলিশিং কার্যক্রম ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বল্লভদি ইউনিয়ন পরিষদ বিট এ উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, বল্লভদি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, ইউনিয়ন বিট অফিসার এস.আই মো: মিজানুর রহমান, সহকারি বিট অফিসার এএসআই ইমেজুল সিকদার প্রমূখ। এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদের সকল ইউপি সদস্য বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
‘নিরাপদ দেশ গড়ি, নারী নির্যাতন বন্ধ করি’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হরিশংকরপুর ইউনিয়নে নারী ধর্ষন ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে হরিশংকরপুর ইউনিয়নের বাকড়ী বাজারে এ সমাবেশের আয়োজন করে সদর থানা পুলিশ। হরিশংকরপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান খন্দকার ফারুকুজ্জামান ফরিদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর থানার ওসি (তদন্ত) এমদাদুল হক শেখ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা ছবদুল বিশ্বাস, শিক্ষক আবু আহম্মেদ বিশ্বাস, ইউপি সদস্য আনোয়ারা খাতুন।
সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলার চারটি ইউনিয়নে পৃথকভাবে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিট পুলিশিং সমাবেশে সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারহানা ইয়াসমিন প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস.এম শহিদুল্লাহ সবুজ, থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলাম, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) পলাশ চন্দ্র দেব, জামতৈল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন শেখ, ঝাঐল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন ঠান্ডু, রায়দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান (বিডিআর) প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধর্ষন ও নারী নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১১ টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুলিশের আয়োজনে টাউনক্লাব মিলনায়তনে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী রেঞ্জের রির্জাভ ফোর্সের কমান্ড্যান্ট এসপি শেখ মোঃ মিজানুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রুহুল আমিন, সমাজসেবক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিম উদ-দৌলা চৌধুরী। এছাড়াও, সমাবেশে জনপ্রতিনিধি, সুধী সমাজ ও বিভিন্ন শ্রেনীর পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। সমাবেশে বক্তারা বলেন,‘ সমাজ থেকে ধর্ষন দুর করতে না পারলে দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ হবে। তাই সমিল্লিতভাবে সমাজ থেকে ধর্ষন দূরীকরণে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান বক্তারা।
টেকনাফ মডেল থানার (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, নিরাপদ সমাজ গড়ি নারী নির্যাতন বন্ধ করি। নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা বন্ধে সমানভাবে নারী-পুরুষের সচেতনতা প্রয়োজন। নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বন্ধ করি নারী বান্ধব দেশ গড়ি। নারীর প্রতি সহিংসতা নিরসনে আপনার পুলিশ আপনার পাশে। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১০ টার দিকে টেকনাফ উপজেলা যুবলীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে বিট পুলিশের আয়োজনে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশের বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। সারাদেশে মতো টেকনাফ উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় একযোগে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন- টেকনাফ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আলম , পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের মেয়র আবদুল্লাহ মনির, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাহেরা আক্তার মিলি, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জাবেদ ইকবাল চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজল কবির, টেকনাফ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মুন্না, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ শাহিন, প্রমুখ ।
মুন্সীগঞ্জে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার বেলা ১১ টায় শহরের লঞ্চঘাট এলাকায় এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় জেলার ৬ টি থানার একযোগে বিট পুলিশিং সমাবেশ উদ্বোধন করা হয়। সমাবেশে নারী ধর্ষণ,নিপীড়ণ ও নির্যাতনেরর বিরোধীতা করে এবং নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবী জানানো হয়। এছাড়াও বিগত সময় দেশ ব্যাপী নারী ধর্ষণের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়। নারী ধর্ষণসহ যে কোন অপরাদ ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে মুন্সীগঞ্জ জেলা পুলিশ সব সময় সোচ্চার দাবী করে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুল মোমেন পিপিএম। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনিচুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) খন্দার আশফাকুজ্জামান,মুন্সীগঞ্জ পৌর মেয়র হাজী ফয়সাল বিপ্লব,হরগঙ্গা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রবির কুপার গাঙ্গুলি, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কাদের মোল্লা,সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান সোহেল,জেলা জজকোর্টোর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের স্পেশিয়াল পিপি এ্যাডভোকেট লাবলু মোল্লা, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর নাসির উদ্দিন উজ্জ্বল ,মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আরিফ উল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সোনিয়া হাবিব লাবনী, কাউন্সিলর মকবুল হোসেন,নারী কাউন্সিলর নার্গিস আক্তারসহ আরো অনেকে।
“বোন তোমার ভয় নাই, ভাই তোমার মরে নাই, ধর্ষকের নিস্তার নাই’ নারীর প্রতি সহিংসতা নিরসনে, আপনার পুলিশ আপনার পাশে” এই শ্লোগানে মাগুরার মহম্মদপুরে যৌন হয়রানিসহ নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে বিট নম্বর ০৬, মহম্মদপুর থানা মাগুরা জেলা পুলিশের আয়োজনে উপজেলা সদর বাজারের রওশন মার্কেটের সামনে এই সচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে আলোচনা সভায় মহম্মদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারক বিশ^াসের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবু আব্দুল্লাহেল কাফি।
যশোরের কেশবপুরে ০৭ নং বিট (পাঁজিয়া) পুলিশিং ইউনিট এর আয়োজনে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার কেশবপুর উপজেলার ০৭ নং পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে ব্যাপক জনসমাগমের উপস্থিতিতে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল এর সভাপতিত্বে ও কেশবপুর থানার সাব ইন্সপেক্টর তাপস কুমার রায়ের সঞ্চালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশ, খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (এ্যাডমিন এন্ড ফিন্যান্স) মোঃ হাবিবুর রহমান বিপিএম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( মিডিয়া সেল) মোঃ শরফুদ্দীন,সহকারী পুলিশ সুপার ( মনিরামপুর সার্কেল ) সোয়েব আহম্মেদ খাঁন,কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জসীমউদ্দীন।
ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে ঠাকুরগাঁও জেলায় ৭৫ টি বিট পুলিশিং এলাকায় প্রতিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘বন্ধ হোক নারী নির্যাতন, নিশ্চিত হোক দেশের উন্নয়ন’ এই স্লোগান সামনে রেখে ১৭ অক্টোবর শনিবার সকাল ১০টায় ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নের বিট পুলিশিং কার্যালয়ে প্রতিরোধী সমাবেশের উদ্বোধন করেন ঠাকুরগাঁও জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ কামাল হোসেন।
বন্ধ হোক নারী নির্যাতন, নিশ্চিত হোক দেশের উন্নয়ন’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মৌলভীবাজার জেলা পুুলিশ প্রশাসনের আয়োজনে শ্রীমঙ্গলে নারী নির্যাতন ও ধর্ষন বিরোধী বিট এলাকাভিত্তিক পুলিশ জনতা সমাবেশ ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেশব্যাপী বাংলাদেশ পুলিশের কর্মসূচির অংশ হিসেবে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ( ওসি) মোঃ আব্দুস ছালেকের সভাপতিত্বে শনিবার সকাল ১০টায় শ্রীমঙ্গল চৌমুহনা চত্বরে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল) মো.আশরাফুজ্জামান।
মজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার, বিট পুলিশিং সফল করি, অপরাধ মুক্ত সমাজ গড়ি। এ স্লোগানকে সামনে রেখে দেশে চলমান নারী ধর্ষণসহ নানা অপরাধ জিরো টলারেন্স রাখতে প্রশাসনের এমন উদ্যাগ। লক্ষ্মীপুরে থানা পুলিশ একদিনে এক যোগে ১৯টি এলাকায় বিট পুলিশিং মত-বিনিময় সভার আয়োজন করেছে। ১৭ অক্টোবর, শনিবার সকাল ১০ টা থেকে উপজেলা ও পৌর এলাকার জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে উক্ত সভা সম্পন্ন করেন। বিট পুলিশিং মত-বিনিময় সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রিয়াজুল কবির, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোসলেহ উদ্দিন, সহ এসআই ও এএসআইগণ এক এক বিট সভায় যোগদেন। এ সময় স্থানীয় চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও স্ব স্ব স্থানীয় জনগণ উপস্থিত ছিলেন।
ঢাকার সাভারের পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে ঢাকা জেলা পুলিশের আয়োজনে সাভার মডেল থানা পুলিশের সহযোগিতায় এই সভা ও পরে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। এই সভায় উপস্থিত ছিলেন- সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক ইমরান, সাভার পৌর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ও ১নং ওয়ার্ডের কমিশনার পদপ্রার্থী রমজান আহমেদ, পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বর্তমান কমিশনার মিনহাজ উদ্দিন প্রমুখ সহ স্থানীয় মানুষ। এসংক্রান্ত আলোচনা সভায় সাভার পৌর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ও ১নং ওয়ার্ডের কমিশনার পদপ্রার্থী রমজান আহমেদ জানান, এই বিট পুলিশিং কার্যক্রমকে স্বাগত জানাই। আর এই বিট পুলিশিং কার্যক্রমে আপনারা সবাই সম্পৃক্ত থাকবেন। এতে করে আমাদের ১নং ওয়ার্ডের অলিতে গলিতে যেকোনো ধরণের সমস্যা তা ইভটিজিং হোক কিংবা ধর্ষণ অথবা নারী নির্যাতন সেগুলো আমরা সহজেই রোধ করতে পারবো। পরে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বিরোধী একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি ১নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

মন্তব্য করুন