ঢাকা, বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০, ৩১ আষাঢ়, ১৪২৭

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ

মুজাহিদ শেখ, শ্রীপুর প্রতিনিধি : বর্তমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে “ মাস্ক নাই,সেবা নাই , মাস্ক নাই, বিক্রি নাই ” এ শ্লোগানকে সামনে নিয়ে মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়াছিন কবীর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জনসচেতনতামূলক এক ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ গ্রহন করেছেন।

এ উদ্যোগকে বাস্তবায়ন করতে তিনি উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান, সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, ইউপি চেয়ারম্যান, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী ও স্বেচ্ছাসেবকদের সমন্বয়ে উপজেলা পর্যায় থেকে শুরু করে মাঠ পর্যায় পর্যন্ত মাইকে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা ও জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণের কাজ শুরু করেছেন। শুক্রবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়াছিন কবীর তাঁর অফিস কক্ষে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবকদের হাতে “মাস্ক নাই,সেবা নাই, মাস্ক নাই, বিক্রি নাই” শ্লোগান সম্বলিত লিফলেট গুলি তুলে দেন।

লিফলেট বিতরণ শেষে মুষলধারে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্বেচ্ছাসেবকদের সাথে নিয়ে উপজেলা সদরের কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেন এবং ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে সচেতনতামূলক বক্তব্য ও লিফলেট বিতরণ করেন। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দ্বারিয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাজির হোসেন কানন ও শ্রীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ হোসেন পল্টু।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়াছিন কবীর বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে মাস্ক ব্যবহারের বিকল্প নেই। কিছু কিছু মানুষের মাস্ক ব্যবহারে যথেষ্ট অনীহা রয়েছে। যে কারনে মাস্ক ব্যবহার,সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও নিয়মিত বিশ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধোয়াকে সামাজিক আন্দোলনে পরিনত করতে হবে । আর এজন্যই মানুষকে মাস্ক ব্যবহারে আরো সচেতন করতে উপজেলা প্রশাসন “মাস্ক নাই,সেবা নাই, মাস্ক নাই, বিক্রি নাই ” কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

এ কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে মাস্ক ব্যবহার না করলে তাকে কোন সেবাও দেওয়া যাবেনা আবার তার কাছে কোন পণ্য সামগ্রী বিক্রি করা যাবে না। তাই জনগণকে সচেতন করতে “ মাস্ক নাই,সেবা নাই , মাস্ক নাই, বিক্রি নাই ” লিফলেটটি প্রতিটি সরকারি দপ্তর,ব্যবসা প্রতিষ্ঠান,যানবাহনসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে টাঙিয়ে রাখার বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে । তবে কেউ এ বিষয়টির ব্যত্যয় ঘটালে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।