ঢাকা, বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০, ৩১ আষাঢ়, ১৪২৭

মেলান্দহে বিষ প্রয়োগে ১৩২টি হাসের মৃত্যু

রুহুল আমিন, জামালপুর প্রতিনিধি : জামালপুর জেলায় মেলান্দহ উপজেলার নাংলা ইউনিয়নের কাওয়াবাদ ও রূপসীহাটা গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ধানের ক্ষেতে বিষ প্রয়োগে ১৩২টি হাসের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেসে। ঘটনার সূত্রে জানা গেসে গত ১১জুন সকালের দিকে মেলান্দহ উপজেলার নাংলা ইউনিয়নের কাওয়াবাদ গ্রামের খমেজ আলীর ছেলে হবিবর রহমান ১৩২টি হাস পাশের গ্রাম রূপসীহাটা বাসিন্দা তোরাফ আলীর স্ত্রী সাহারা খাতুন তাদের ধানের ক্ষেতে চাউলের সাথে বিষ মিশিয়ে ফেলে রাখলে হবিবুর রহমানের একঝাক হাস এসে ঐ বিষমাখা চাউল খেয়ে ফেলে এতে তার ১৩২টি হাস মারা যায়। পরে এ নিয়ে এলাকা তোলপাড় শুরু হয়, এক পর্যায়ে হবিবর রহমান মেলান্দহ থানায় তোরাফ আলীর ও তার স্ত্রী সাহারা খাতুনের নামে একটি অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ ঘটনা তদন্ত করে এবং ইহার সত্যতা প্রমান পাওয়া যায়। পরে এলাকাবাসীর অনুরোধে আপোষ মিমাংসার সময় নেয় এলাকাবাসী। পরবর্তিতে এলাকাবাসী এই ঘটনা নিয়ে একটি শালিশ বসে আলোচনা পর্যালোচনা করে এবং সাক্ষ্য প্রমানে জানা গেসে রূপসীহাটা গ্রামের তোরাফ আলীর স্ত্রী সাহারা খাতুন পূর্ব শত্রুতা ও হিংসার কারনে তার নিজ ধানের ক্ষেতে চাউলের সাথে বিষ মেখে রেখে ছিল। ঐ বিষমাখা চালগুলো খেয়েই হবিবুর রহমানের ১৩২টি হাস মারা গেছে বলে স্বীকার করেন ঐ শালিশ দরবারে। আপোষ মীমাংসার শর্তে ১৫০০০ পনেরো হাজার টাকা জরিমানা করা হয় তোরাফ আলী ও তার স্ত্রী সাহারা খাতুনকে। বর্তমানে তোরাফ আলী ও তার স্ত্রী সাহারা খাতুন ঐ ১৫০০০ পনেরো হাজার টাকা দেওয়ার কথা থাকলেও দেই দিচ্ছি বলে গড়িমসি করছে বলে জানা গেছে।