সারাদেশ

আনসার সদস্যকে নদীতে ফেলে পালাল পাঁচ জেলে

ফরিদপুরের পদ্মা নদীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানকালে আটক পাঁচ জেলে এক আনসার সদস্যকে ট্রলার থেকে ধাক্কা দিয়ে পদ্মা নদীতে ফেলে পালিয়েছে। পরে তাকে উদ্ধার  করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রাজীবুল ইসলাম (৩৬) নামের ওই আনসার সদস্য বর্তমানে সুস্থ।

এদিকে, ওই অভিযানে আটক অপর চার জেলেকে ১০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার রাত ৮টার দিকে ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নের গোলডাঙ্গি কলাবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও আদালত সূত্রে জানা গেছে,গতকাল বুধবার বিকেলে ফরিদপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইশরাত জাহান ও নূসরাত জাহানের নেতৃত্বে আনসার ও মৎস্য কর্মকর্তাদের নিয়ে একটি স্পিডবোট, একটি ছোট ট্রলার ও একটি বড় ট্রলার নিয়ে নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নের গোলডাঙ্গি কলাবাগান এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শুরু হয়। স্পিডবোট নিয়ে আদালতের একটি দল অভিযান চালিয়ে এক জেলেকে আটক করে ছোট ট্রলারে করে তাকে পাঠানো হয় বড় ট্রলারে পৌঁছে দিতে। ওই ছোট ট্রলারে নিরস্ত্র  আনসার সদস্য রাজীবুল ইসলাম দায়িত্ব পালন করছিলেন।

আটক এক জেলেকে ছোট ট্রলারে আনার সময় পদ্মা নদীতে আরও চার জেলেকে মাছ শিকার করতে দেখে রাজীবুল ছোট ট্রলারে ওই চার জেলেকেও তুলে নেন। পরে পাঁচ জেলেকে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখা হয়। একপর্যায়ে পাঁচ জেলে কৌশলে দড়ি খুলে আনসার সদস্যকে ধাক্কা দিয়ে নদীতে ফেলে দিয়ে সাঁতার কেটে পালিয়ে যান।

জেলা আনসার ও ভিডিপি কমান্ডার এনামুল খান বলেন, আনসার সদস্য রাজীবুলকে ট্রলার থেকে নদীতে ফেলে দিয়ে পাঁচ জেলেই পালিয়ে যান। পরে রাজীবুলকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি সুস্থ রয়েছেন।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মো. সাইফুল হাসান জানান, ছোট ট্রলারটিতে ওই পাঁচ জেলে আনসার সদস্য রাজীবুল ইসলামকে একা পেয়ে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে পালিয়ে যান। তিনি বলেন, একই অভিযানে আটক চার জেলেকে ১০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। জব্দ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে এবং ইলিশ মাছ স্থানীয় এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *