ব্যবসা-বানিজ্য

দুমাসে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ

সাধারণের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে পেঁয়াজের দাম। রাজধানীর বাজারগুলোতে গত দুই মাসের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। দুমাস আগের ২৫-৩০ টাকার পেয়াজ এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০-৫৫ টাকা। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে আকার ভেদে প্রতি কেজিতে বেড়েছে ৫-১০ টাকা। এছাড়া সবজির বাজারও অনেকটা চড়া। তবে অপরিবর্তিত রয়েছে মাছ, মাংস আর মুরগির দাম।

শুক্রবার রাজধানীর কচুক্ষেত, ইব্রাহীমপুর, ভাষানটেকসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০-৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে দেশি পেঁয়াজের দাম কিছুটা কম। দেশি পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৪০-৪৫টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া কাঁচাবাজারে পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকা সত্ত্বেত বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে বেশিরভাগ সবজি।

ব্যবসায়ীরা জানান, বন্যার কারণ এবং এই অমৌসুমে বাজারে সরবরাহ কমে যাওয়ায় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে।
পেঁয়াজের দাম বাড়াতে কোন অসুবিধা হচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে কচুক্ষেত বাজারে আগত ক্রেতা মনসুর আলী বলেন, অসুবিধা তো হচ্ছেই। কোন পন্যের দাম বাড়লে কষ্ট পাই আমরা সাধারন মানুষেরা।

কেজিপ্রতি সাদা আলু ২০-২২ টাকা, বেগুন ৫০-৬০ টাকা, করলা ৫০-৬০ টাকা, শিম ৯০-১০০ টাকা, টমেটো ১০০-১২০ টাকা, গাজর ৮০ টাকা, মূলা ৫০-৬০ টাকা, শশা ৬০-৭০ টাকা, পেঁপে ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়ার পিচ ৩০-৪০ টাকা, বরবটি ৬০-৭০ টাকা, ঢেঁড়শ ৬০ টাকা, কচুর লতি ৬০-৬৫ টাকা, কাঁচা কলা প্রতি হালি ২০-২৮ টাকা, লেবু প্রতি হালি ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। দেশি রসুন কেজি প্রতি ১৬০ টাকা, মোটা রসুন ২০০ টাকা, আদা ১২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রতি আঁটি লাউ শাক ৩০ টাকা, লাল শাক ও সবুজ শাক ৩০ টাকা, পুঁই শাক ৩০ টাকা ও ডাটা শাক ২৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

আগের সপ্তাহের দরেই গরু, খাসি ও ব্রয়লার মুরগির বিক্রি করছে বিক্রেতারা। গরুর মাংস প্রতি কেজি ৫০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া খাসি ৫৫০-৫৮০ টাকা, কেজি প্রতি ব্রয়লার মুরগি ১৩০-১৪০ টাকা, কক মুরগি ২৫০-২৬০ টাকা, দেশি মুরগি ৩৩০-৩৫০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

রাজধানীর খুচরা মাছের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি রুই-কাতলা ৩৫০-৪০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৬০-২৫০, সিলভার কার্প ১৮০-২০০ টাকা, আইড় ৪৫০-৮০০ টাকা, গলদা চিংড়ি ৬০০-১৪০০ টাকা, পুঁটি ১৮০-২০০ টাকা, পোয়া ৪০০-৪৫০ টাকা, মলা ৩২০-৩০০ টাকা, পাবদা ৫০০-৬০০ টাকা, বোয়াল ৪৫০-৫০০ টাকা, শিং ৫০০-৮০০, দেশি মাগুর ৬৫০-৭০০ টাকা, শোল মাছ ৪০০-৬০০ টাকা, পাঙ্গাস ১৪০-১৬০ টাকা, চাষের কৈ ২০০-২৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বিক্রেতারা এক কেজি মোটা চাল বিক্রি করছে ৪৫-৫০ টাকা দরে। এছাড়া মিনিকেট ৫৫-৬০ টাকা, নাজির শাইল ৬০-৬৪ টাকা ও বিআর আটাশ ৪০-৪৪ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *